ভ1 (p. 655) bha1 বাংলা বর্ণমালার চতুর্বিংশতি ব্যঞ্জনবর্ণ, মহাপ্রাণ ঘোষ ওষ্ঠ্য ভ্ ধ্বনির বর্ণরূপ।
2) ভ2 (p. 655) bha2 বি. 1 নক্ষত্র 2 গ্রহ। [সং. √ ভা + অ]। ̃ গোল, ̃ চক্র, ̃ মণ্ডল বি. (জ্যোতি.) রাশিচক্র।
3) ভঁইসা, ভঁয়সা (p. 655) bham̐isā, bham̐ẏasā বিণ. 1 মোষের দুধ দিয়ে তৈরি (ভঁয়সা ঘি); 2 মোষে-টানা (ভঁইসা গাড়ি)। [হি. ভঁইস সং. মহিষ]।
4) ভক (p. 655) bhaka অব্য. 1 ধোঁয়া দুর্গন্ধ প্রভৃতির প্রচুর পরিমাণে বা হঠাত্ জোরে বেরোবার অব্যক্ত শব্দ (ভক করে একরাশ ধোঁয়া বেরোল); 2 সহসা বেগে বমি বেরোবার শব্দ। [ধ্বন্যা.]। ভক ভক অব্য. ধোঁয়া বা বমি বা দুর্গন্ধ জোরে ক্রমাগত বেরোবার শব্দ।
5) ভক্কি (p. 655) bhakki বি. (অশি.) ধোঁকা; ভাঁওতা (ভক্কি দিয়ে টাকা নিয়ে গেল)। [দেশি]।
6) ভক্ত (p. 655) bhakta বিণ. 1 ভক্তিমান (মাতৃভক্ত); 2 পূজা করে এমন (কালীভক্ত; 3 প্রীতিযুক্ত (চায়ের ভক্ত)। ☐ বি. ভক্তিমান বা প্রীতিযুক্ত ব্যক্তি। [সং. √ ভজ্ + ত]। ̃ বত্সল বিণ. ভক্তের প্রতি অনুরক্ত। ̃ .বাঞ্ছা-কল্প-তরু বি. বিণ. যিনি স্বর্গের কল্পতরুর মতো ভক্তের সমস্ত কামনা পূরণ করেন। ̃ .বিটেল বিণ. কপট; ভক্তের ভান করে এমন। ভক্তাগ্র-গন্য বিণ. ভক্তদের মধ্যে শ্রেষ্ঠ বা প্রধান।
7) ভক্তি (p. 655) bhakti বি পূজনীয় বা শ্রদ্ধেয় ব্যক্তির প্রতি শ্রদ্ধা বা অনুরাগ (‘ভক্তিতে মিলায় বস্তু তর্কে বহুদূর’)। [সং. √ ভজ্ + তি]। ̃ .গীতি বি. ভক্তি প্রকাশ পায় এমন গান, যে গানে ঈশ্বরের প্রতি ভক্তি প্রকাশ করা হয়। ̃ .তত্ব বি. ভক্তিবিষয়ক শাস্ত্র বা জ্ঞানপূর্ণ আলোচনা ̃ .পথ, ̃ .মার্গ বি. ভক্তিবলে মুক্তি বা মোক্ষ লাভের উপায়। ̃ .বাদ বি. জ্ঞান বা কর্ম নয় বিশুদ্ধ ভক্তির দ্বারাই সিদ্ধি বা মুক্তি লাভ করা যায় এই মত। ̃ .বিহ্বল বিণ. ভক্তিতে আত্মহারা বা আপ্লুত। ̃ .ভরে ক্রি-বিণ. ভক্তি সহকারে, ভক্তির সঙ্গে (ভক্তিভরে প্রণাম করলেন)। ̃ .ভাজন বিণ. ভক্তির পাত্র, যাকে ভক্তি করা যায় বা উচিত। ̃ .মান (-মত্) বিণ. ভক্ত; ভক্তিযুক্ত (ভক্তিমান পূজারি)। স্ত্রী. ̃ .মতী। ̃ .মূলক বিণ. ভক্তিবিষয়ক, ভক্তিসম্পর্কিত (ভক্তিমূলক গ্রন্হ, ভক্তিমূলক আলোচনা)। ̃ .যোগ বি. ভক্তির দ্বারা ঈশ্বরের আরাধনা। ̃ .রস বি. (অল.) সাহিত্যের নবরসের অন্যতম। ̃ .হীন বিণ. প্রাণে বা মনে ভক্তি নেই এমন (ভক্তিহীন পূজাকে ভণ্ডামি বলা যায়)।
8) ভক্ষক (p. 655) bhakṣaka বিণ. বি. যে ভক্ষণ করে বা খায় (যে রক্ষক, সে-ই ভক্ষক)। [সং. √ ভক্ষ + অক]। ভক্ষণ বি. খাওয়া, ভোজন (একবেলা তণ্ডুল ভক্ষণ)। ভক্ষণীয়, ভক্ষ্য বিণ. খাওয়া বা ভোজন করা উচিত্ এমন, ভোজ্য। ভক্ষিত বিণ. খাওয়া হয়েছে এমন। ভক্ষ্যাব-শেষ বি. খাওয়ার পরে যা অবশিষ্ট থাকে। ভক্ষ্যাভক্ষ্য বি. খাদ্য ও অখাদ্য, খাওয়ার উপযুক্ত ও অনুপযুক্ত খাদ্য। ☐ বিণ. খাওয়ার যোগ্য ও অযোগ্য।
9) ভগ (p. 655) bhaga বি. 1 ঐশ্বর্য বা ঐশীগুণ বা ঈশ্বরত্ব, বীর্য (অর্থাত্ সর্বশক্তি), যশ, শ্রী, জ্ঞান ও বৈরাগ্য; এই ছয়রকম গুণ (ভগবান, ভগবতী); 2 মহিমা; মাহাত্ম্য; 3 সৌভাগ্য; 4 সৌন্দর্য (সুভগ); 5 ধর্ম; 6 স্ত্রী-যোনি (ভগাঙ্কুর); 7 মলদ্বার (ভগন্দর)। [সং. √ ভজ্ + অ]।

ভগন্দর

10) ভগন্দর (p. 655) bhagandara বি. মলদ্বারে নালি-ঘা, anal fistula. [সং. ভগ + √ দৃৃ + অ]।
11) ভগবতী (p. 655) bhagabatī দ্র ভগবান।
12) ভগ-বদ্-গীতা (p. 655) bhaga-bad-gītā বি. মহাভারতে কুরুক্ষেত্র যুদ্ধে ভীষ্মপর্বে যুদ্ধে অনাগ্রহী অর্জুনের প্রতি শ্রীকৃষ্ণের উপদেশাবলির সংকলনগ্রন্হ, গীতা। [সং. ভগবত্ + গীতা]।
13) ভগ-বদ্-দত্ত, ভগ-বদ্দত্ত (p. 655) bhaga-bad-datta, bhaga-baddatta বিণ. ভগবান দিয়েছেন এমন, ভগবানের কাছ থেকে পাওয়া গেছে এমন; ঐশ্বরিক (ভগবদ্দত্ত কণ্ঠ)। [সং. ভগবত্ + দত্ত]।
14) ভগ-বদ্ভক্ত (p. 655) bhaga-badbhakta বিণ. ভগবানের প্রতি ভক্তি আছে এমন, ঈশ্বরের প্রতি ভক্তিমান (ভগবদ্ভক্ত ধ্রুব)। [সং. ভগবত্ + ভক্ক্ত]। বি. [ভগ-বদ্ভক্তি়]।
15) ভগ-বান (p. 655) bhaga-bāna (-বত্) বি. পরমেশ্বর, ঈশ্বর। ☐ বিণ. 1 ঐশ্বর্য শ্রী ইত্যাদি ছয়টি গুণসম্পন্ন; 2 পূজ্য, মান্য, শ্রদ্ধেয়। [সং. ভগ + বত্]। ভগ-বতী বি. (স্ত্রী.) দুর্গাদেবী। ☐ বিণ. ঐশ্বর্যাদি ছয় গুণসম্পন্না; পূজ্যা।
16) ভগিনী (p. 655) bhaginī বি. 1 বোন, সহোদরা; 2 বোনের তুল্য স্ত্রীলোক।
17) ভগোল (p. 655) bhagōla দ্র ভ2।

ভগ্ন

18) ভগ্ন (p. 655) bhagna বিণ. 1 ভাঙা (ভগ্নদশা, ভগ্ন বাঁশি); 2 খণ্ডিত; 3 চূর্ণ (ভগ্নপ্রাসাদ, ভগ্নসৌধ); 4 বাঁকা, কুঁজো (ভগ্নপৃষ্ঠ); 5 স্বাস্হ্যহীন (ভগ্নদেহ); 6 ব্যর্থ, নষ্ট (ভগ্নমনোরথ); 7 দুঃখে অবসন্ন বা হতাশ (ভগ্নহৃদয়, ভগ্নোদ্যম)। [সং. √ ভন্জ্ + ত। ̃ .কণ্ঠ-ভগ্নস্বর -এর অনুরূপ। ̃ .চিত্ত বিণ. মন ভেঙে গেছে এমন। ̃ .দশা বি. ধ্বংসপ্রাপ্ত অবস্হা। ̃ .দূত বি. যে-দূত যুদ্ধে ব্যর্থতা বা পরাজয়ের সংবাদ নিয়ে আসে। ̃ .দেহ বিণ. শরীর ভেঙে গেছে এমন। ̃ .পৃষ্ঠ বিণ. পিঠ বেঁকে বা কুঁজো হয়ে গেছে এমন। ̃ .প্রায় বিণ. প্রায় ভেঙেছে এমন। ̃ .স্তুপ বি. স্তূপাকার ধ্বংসাবশেষ, ঘরবাড়ি ও অন্যান্য পাকা ইমারতের ভেঙে-পড়া অবস্হা। ̃ .স্বর, ̃ .কণ্ঠ বিণ. গলার স্বর বা আওয়াজ ভেঙে বিকৃত হয়েছে এমন। ☐ বি. ভেঙে-যাওয়া কণ্ঠস্বর। ̃ .স্বাস্হ্য বিণ. রোগে বা অন্য কারণে শরীর ভেঙে গেছে এমন। ̃ .হৃদয় বিণ. মন ভেঙে গেছে এমন। ভগ্নাংশ বি. 1 ভগ্ন বা খণ্ডিত বস্তুর অংশ; 2 (গণিতে) 1 -এর চেয়ে কম বা ছোটো রাশি, ভগ্নাঙ্ক, fraction. ভগ্নাঙ্ক বি. (গণিতে) 1 -এর অংশঘটিত বা 1 -এর চেয়ে কম বা ছোটো রাশি। ভগ্নাব-শেষ বি. কোনো বস্তু হয়ে গেলে যা পড়ে থাকে বা যা অবশিষ্ট থাকে (প্রাচীন মন্দিরের ভগ্নাবশেষ)। বিণ. ভগ্নাব-শিষ্ট। ভগ্নাবস্হা বি. ভাঙাচোরা অবস্হা, ভগ্নদশা। ভগ্নোত্-সাহ, ভগ্নোদ্যম বিণ. উত্সাহ চলে গেছে এমন, হতাশ।
19) ভঙ্গ (p. 655) bhaṅga বি. 1 ভেঙে যাওয়া (ঊরুভঙ্গ, ধনুর্ভঙ্গ); 2 রক্ষা বা পালন না করা (প্রতিশ্রুতিভঙ্গ); 3 লঙ্ঘন (চুক্তিভঙ্গ, বিশ্বাসভঙ্গ); 4 নষ্ট হওয়া (স্বাস্হ্যভঙ্গ); 5 সমাপ্তি (সভাভঙ্গ); 6 বক্রতা (ত্রিভঙ্গ); 7 ভঙ্গি (ভ্রুভঙ্গ, তরঙ্গভঙ্গ); 8 পরাজিত হয়ে পালানো (রণে ভঙ্গ দেওয়া); 9 বাধা বা ব্যাঘাত (ধ্যানভঙ্গ); 1 বিশৃঙ্খলা (ছত্রভঙ্গ)। [সং. √ ভন্জ্ + অ]। বিণ. ভগ্ন। ̃ .কুলীন বি. কৌলিন্যের বিধি বা নিয়ম যে-কুলীন লঙ্ঘন করেছে। ̃ .পয়ার বি. পয়ার ছন্দের রকমফেরবিশেষ। ̃ .প্রবণ বিণ. সহজেই ভেঙে যায় এমন, ভঙ্গুর, পলকা, ঠুনকো।
20) ভঙ্গিল (p. 655) bhaṅgila বিণ. 1 ভঙ্গপ্রবণ, ভঙ্গুর; 2 ভাঁজযুক্ত (ভঙ্গিল পর্বত, folded mountain)। [সং. ভঙ্গ + ইল]।

ভঙ্গুর

21) ভঙ্গুর (p. 655) bhaṅgura বিণ. 1 সহজেই বা একটুতেই ভেঙে যায় এমন, ভঙ্গপ্রবন; 2 (আল.) ক্ষণস্হায়ী, নশ্বর (ভঙ্গুর জীবন)। [সং. √ ভন্জ্ + উর]। বি. ̃ তা।
22) ভচক্র (p. 655) bhacakra দ্র ভ2।
23) ভজ-কট (p. 655) bhaja-kaṭa বি. ব্যাঘাত, ঝামেলা, ঝঞ্ঝাট, ফ্যাসাদ (জমিজমার বিক্রি নিয়ে ভজকট বেধেছে)। ☐ বিণ. জটিল ও ঝঞ্ঝাটপূর্ণ (সে এক ভজকট ব্যাপার)। [দেশি]।
24) ভজন (p. 655) bhajana বি 1 দেবতার মহিমাকীর্তন ও স্তুতি; 2 আরাধনা ও সেবা (ভজনপূজন নিয়ে থাকে); 3 যে স্তুতিগানে দেবতার মহিমা কীর্তন করা হয়-এই গান সচ. হিন্দিতে রচিত। [সং. √ ভজ্ + অন]। ̃ .পূজন বি. দেবতার পূজা ও আরাধনা। ভজনা বি. উপাসনা, আরাধনা।
25) ভজ-মান (p. 655) bhaja-māna বিণ. 1 ভজনা করছে এমন, সেবমান (মন্দিরের ভজমান পূজারি); 2 বিভাজক, ভাগকারী। [সং. √ ভজ্ + শানচ্]। স্ত্রী. ভজ-মানা।
26) ভজা (p. 655) bhajā ক্রি. 1 ভজনা করা, উপাসনা করা; 2 তোষামোদ করা (ওপরওয়ালাকে ভজাতে চেষ্টা করছে)। ☐ বি. উক্ত দুই অর্থে। ☐ বিণ. ভজনাকারী (কর্তাভজা)। [সং. ভজ্ + বাং. আ]। ̃ নো ক্রি. 1 উপাসনা বা ভজনা করানো; 2 সাক্ষ্যপ্রমাণ দিয়ে প্রতিপন্ন করানো; 3 তোষামোদ করে রাজি করানো বা স্বপক্ষে আনা। ☐ বি. উক্ত সব অর্থে। ☐ বিণ. উপাসনা করানো হয়েছে এমন; ফুসলানো হয়েছে এমন।
27) ভজ্য-মান (p. 655) bhajya-māna বিণ. 1 উপাসিত হচ্ছে এমন, সেব্যমান; 2 বিভাজিত বা বিভক্ত হচ্ছে এমন। [সং. ভজ্ + শানচ্]।
28) ভঞ্জন (p. 655) bhañjana বি. দূরীকরণ, নিবারণ, নিরসন (মানভঞ্জন, সন্দেহভঞ্জন)। ☐ বিণ. দূরকারী, নিরসনকারী (বিপদভঞ্জন হরি)। [সং. √ ভন্জ্ + অন]। ভঞ্জক বি. ভঞ্জনকারী।
29) ভঞ্জা (p. 655) bhañjā (কাব্যে) ক্রি. ভঞ্জন করা, ভাঙা; দূর করা, ঘুচানো (‘দাসীর কলঙ্কভঞ্জ’: মধু)। [সং. √ ভন্জ্ + বাং. আ]।
30) ভট (p. 655) bhaṭa বি. 1 সৈনিক, যোদ্ধা; 2 প্রতিহারী; 3 নীচজাতিবিশেষ। [সং. √ ভট্ + অ]।

ভট ভট

31) ভট ভট (p. 655) bhaṭa bhaṭa অব্য. বুদ্বুদ ফাটবার বা বায়ু বেরিয়ে যাবার শব্দ। [ধ্বন্যা.]। ভট-ভটানি বি. ক্রমাগত ভট ভট শব্দ।
32) ভট্ট (p. 655) bhaṭṭa বি. 1 ভাট, স্তুতিপাঠক; 2 বেদজ্ঞ পণ্ডিতের উপাধিবিশেষ; 3 দর্শনশাস্ত্রজ্ঞ; 4 অধ্যাপক। [সং. √ ভট্ + ত]।
33) ভট্টাচার্য (p. 655) bhaṭṭācārya বি. 1 দর্শনশাত্রজ্ঞ; 2 বেদজ্ঞ ব্রাহ্মণের উপাধিবিশেষ; 3 বাঙালি ব্রাহ্মণের পদবি। [সং. ভট্ট + আচার্য]।
34) ভট্টারক (p. 655) bhaṭṭāraka বি. 1 পণ্ডিত 2 ঋষি, মুনি; 3 (সংস্কৃত নাটকে উল্লেখ বা সম্বোধনে) রাজা; 4 রবি (ভট্টারক বার)। [সং. ভট্ট + √ ঋ + অ + ক]।
35) ভড় (p. 655) bhaḍ় বি. 1 বাঙালি হিন্দুর পদবিবিশেষ; 2 প্রচুর ভার বহন করতে পারে এমন বড়ো নৌকাবিশেষ। [ ভার]।
36) ভড়ং (p. 655) bhaḍ় বি. 1 বাইরের আড়ম্বর বা ঘটা; 2 চাল, বুজরুকি, ভান। [দেশি]।
37) ভড়কা (p. 655) bhaḍ়kā ক্রি. হঠাত্ ভয় পেয়ে পিছিয়ে যাওয়া বা নিবৃত্ত হওয়া (তুমি ভড়কে গেলে নাকি?); ঘাবড়ে যাওয়া। ̃ নি বি. ঘাবড়ে যাওয়া। ̃ নো ক্রি. বি. 1 ভড়কা; 2 ভড়কে দেওয়া। [দেশি-তু. হড়কা]।
38) ভণিত (p. 655) bhaṇita বিণ. উক্ত, কথিত। ☐ বি. কথা, কথন, উক্তি। [সং. √ ভণ্ + ত]।
39) ভণিতা (p. 655) bhaṇitā বি. 1 কবিতার আরম্ভে মাঝে বা শেষে কবির নামযুক্ত উক্ত; 2 (ব্যঙ্গে) অনাবশ্যক ভূমিকা (ভণিতা না করে আসল কথাটা বলে ফেলো)। [সং. ভণিত + বাং. আ]।

ভণ্ড

40) ভণ্ড1 (p. 655) bhaṇḍa1 বিণ. নষ্ট, বিপর্যস্ত (লণ্ডভণ্ড)। [ভণ্ডুল দ্র]।
41) ভণ্ড2 (p. 655) bhaṇḍa2 বিণ. 1 কপট, ভানকারী, ছদ্ম (ভণ্ড সন্ন্যাসী); 2 শঠ, প্রতারক। ☐ বি. কপট বা ধূর্ত ব্যক্তি, প্রতারক (তুমি দেখছি একটা ভণ্ডের পাল্লায় পড়েছ)। [সং. √ ভণ্ড্ + অ]। ̃ ন বি. ভাঁড়ানো প্রতারণা। ভণ্ডানো ক্রি. বি. (কাব্যে) ঠকানো, প্রতারণা করা, ভাঁড়ানো। ভণ্ডামি বি. ভান, কপটতা; প্রতারণা।
42) ভদন্ত (p. 655) bhadanta বি. বৌদ্ধ সন্ন্যাসী সম্পর্কে প্রযোজ্য শ্রদ্ধাপূর্ণ বিশেষণ। ☐ বিণ. সম্মানিত; অভিজাত। [সং.]।
43) ভদ্র (p. 655) bhadra বিণ. 1 রুচি মার্জিত এমন (ভদ্র পোশাক); 2 সদাচার সম্পন্ন (ভদ্র রীতি); 3 শিষ্ট, সভ্য (ভদ্র লোক); 4 শুভ, মঙ্গলজনক। ☐ বি. মঙ্গল, শিব। [সং. √ ভন্দ্ + র]। স্ত্রী. ভদ্রা। ̃ .কালী বি. দুর্গাদেবীর রূপভেদবিশেষ। তা বি. ভদ্র ভাব বা আচরণ। ̃ .জনোচিত বিণ. ভদ্রলোকসুলভ ভদ্রলোকের আচরণীয়, ভদ্রতাপূর্ণ। ̃ .মহিলা বি. (স্ত্রী.) ভদ্র বা ভদ্রবংশীয় স্ত্রীলোক। ̃ .সন্তান বি. ভদ্রবংশের লোক। ̃ .সমাজ বি ভদ্র বা সভ্য লোকদের সমাজ (ভদ্র সমাজে এসব চলে না)।
44) ভদ্রা2 (p. 655) bhadrā2 বি. (আঞ্চ.) অমঙ্গল (গ্রামে যেন ভদ্রা লেগেছে)। দেশি।
45) ভদ্রণী (p. 655) bhadraṇī বি. (স্ত্রী.) শিবপত্নী দুর্গা। [সং. ভদ্র + আনী]।
46) ভদ্রসন (p. 655) bhadrasana বি. বাস্তুভিটা, বসতবাড়ি (ভদ্রাসনটুকুও চলে গেছে)। [ভদ্র + আসন বাং. মতে]।
47) ভদ্রোচিত (p. 655) bhadrōcita বিণ. ভদ্রলোকসুলভ ভদ্রলোককে মানায় এমন (ভদ্রোচিত ব্যবহার)। [সং. ভদ্র + উচিত]।
48) ভন-ভন (p. 655) bhana-bhana অব্য. মাছি মৌমাছি বোলতা প্রভৃতির জোরে পাখা সঞ্চালনের বা গুঞ্জনের শব্দ। [ধ্বন্যা.]।
49) ভন-ভনিয়ে (p. 655) bhana-bhaniẏē ক্রি-বিণ. ভনভন শব্দে (মাছিগুলো ভনভনিয়ে উড়ে বেড়াচ্ছে)।
50) ভনা (p. 655) bhanā ক্রি. (কাব্য) বলা (কাশীরাম দাস ভনে)। [সং. √ ভণ্ + বাং. আ]।

ভণ্ডুল

51) ভণ্ডুল (p. 655) bhaṇḍula বিণ. পণ্ড, ব্যর্থ, কেঁচে গেছে এমন (তোমার ভুলে গোটা প্ল্যানটাই ভণ্ডুল হয়ে গেল)। [দেশি]।
52) ভপঞ্জর-ভগোল (p. 655) bhapañjara-bhagōla ও ভচক্র -র অনুরূপ।
53) ভব (p. 655) bhaba বি. 1 ইহলোক, সংসার (ভববন্ধন); 2 সত্তা; 3 স্হিতি; 4 প্রাপ্তি; 5 পৃথিবী (ভবের হাট, ভবলীলা সাঙ্গ করা); 6 শিব, কল্যাণ, মঙ্গল। ☐ বিণ. (সমাসে উত্তরপদরূপে) উত্পন্ন, জাত (তদ্ভব)। [সং. √ ভূ + অ]। ̃ .ঘুরে বিণ. বি. বিনা কাজে সর্বত্র ঘুরে বেড়ায় এমন; বাউণ্ডুলে। ̃ .তারণ বিণ. সংসারবন্ধন থেকে মুক্তিদাতা, সংসার যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দেন এমন (ভবতারণ বিষ্ণু)। ☐ বি. বিষ্ণু। ̃ .তারিণী বিণ. স্ত্রী. মোক্ষদাত্রী। ☐ বি. দুর্গা। ̃ .পার বি. সংসারসমুদ্র পার বা উত্তরণ অর্থাত্ সংসারযাত্রা থেকে মুক্তি। ̃ .পারাবার বি. সংসারসমুদ্র। ̃ .বন্ধন বি. পার্থিব জীবনের বন্ধন। ̃ .ভবন বি. 1 শিবের আলয় কৈলাস; 2 জগত্, সৃষ্টি। ̃ .ভয় বি. 1 পৃথিবীতে জীবরূপে অবস্হিতির ভয়; 2 পূনর্জন্মের ভয়। ̃ .ভার বি. সাংসারিক ও জাগতিক দুঃখকষ্টের বোঝা। ̃ .মণ্ডল বি. জগত্, পৃথিবী, সমগ্র সৃষ্টি। ̃ .যন্ত্রণা বি. পার্থিব জীবনের দুঃখকষ্ট। ̃ .লীলা বি ইহজীবনের কার্যাবলি; সংসারযাত্রা; পৃথিবীতে জীবনযাত্রা; জীবদ্দশা। ̃ .লোক বি. পৃথিবী, মরজগত্। ̃ .সংসার, ̃ .সাগর, ̃ .সিন্ধু – ভবপারাপার -এর অনুরূপ।
54) ভবদীয় (p. 655) bhabadīẏa বিণ. (চিঠিপত্রের শেষে লেখকের নামের আগে ব্যবহৃত) আপনার; তোমার। [সং. ভবত্ + ঈয়]।
55) ভবন (p. 655) bhabana বি. 1 গৃহ, আলয় (‘শমন-ভবন না হয় গমন যে লয় রামের নাম’) 2 বাসস্হান; 3 স্হিতি, ভাব, হওয়া (ঘনীভবন, বাষ্পীভবন)। [সং. √ ভূ + অন]।
56) ভবন-শিখী (p. 655) bhabana-śikhī বি. গৃহপালিত ময়ূর। [সং. ভবন + শিখী]।
57) ভবপার, ভবপারাবার, ভববন্ধন, ভবভয়, ভবভার, ভবযন্ত্রণা, ভবলীলা (p. 655) bhabapāra, bhabapārābāra, bhababandhana, bhababhaẏa, bhababhāra, bhabayantraṇā, bhabalīlā দ্র ভব।
58) ভবানী (p. 655) bhabānī বি. (স্ত্রী.) শিবপত্নী দুর্গা। [সং. ভব + আনী-তু. ভদ্রাণী]। ̃ .পতি বি. দুর্গার পতি শিব।
59) ভবার্ণব (p. 655) bhabārṇaba বি. 1 ভবসমুদ্র, সংসাররূপ সমুদ্র। [সং. ভব + অর্ণব]।
60) ভবি (p. 655) bhabi বি. 1 এক কল্পিত জেদি মেয়ে; 2 নাছোড়বান্দা (যতই বোঝাও, ভবি ভোলে না) [দেশি]।

ভবিতব্য

61) ভবিতব্য (p. 655) bhabi-tabya বি. নিয়তি, ভাগ্য (ভবিতব্য কে আর পালটাবে)। ☐ বিণ. অবশ্যম্ভাবি, যাঘটবেই। [সং. √ ভূ + তব্য]।
62) ভবিষ্য (p. 655) bhabiṣya বিণ. ভাবী, আগামী, পরে হবে বা ঘটবে এমন (ভবিষ্য বংশধর)। ☐ বি. পুরাণবিশেষ। [সং. √ ভূ + সতৃ]। ̃ .নিধি বি. 1 ভবিষ্যতের জন্য সঞ্চিত অর্থ; 2 প্রভিডেন্ট ফাণ্ড, provident fund. ̃ .সূচনা বি. ভবিষ্যতে যা ঘটবে তার আভাস, পূর্বাভাস।
63) ভবিষ্যত্ (p. 655) bhabiṣyat বিণ. ভাবী, পরে ঘটবে এমন, আগামী (ভবিষ্যত্ প্রজন্ম, ভবিষ্যত্ কাল)। ☐ বি. 1 ভাবীকাল, পরবর্তী সময় (ভবিষ্যতের ভাবনা); 2 পরিণাম (তোমাদের ভবিষ্যত্ খুব খারাপ। [সং. √ ভূ + স্যতৃ]। ভবিষ্যদ্বক্তা বি. যে ব্যক্তি ভবিষ্যতে কী ঘটবে তা বলে দিতে পারে। ভবিষ্যদ্বাণী বি. ভবিষ্যতে কী ঘটবে আগেই তা বলা (তাঁর ভবিষ্যদ্বাণী অনেকটাই মিলে গেছে)।
64) ভবিষ্যনিধি (p. 655) bhabiṣyanidhi দ্র ভবিষ্য।
65) ভবেশ (p. 655) bhabēśa বি. মঙ্গলময় শিব, মহাদেব (‘হে ভবেশ হে শঙ্কর, সবারে দিয়েছ ঘর’: রবীন্দ্র)। [সং. ভব + ঈশ]।
66) ভব্য (p. 655) bhabya বিণ. ভদ্র, শিষ্ট, শান্ত মার্জিতরুচি (ভব্যসত্য)। [সং. √ ভূ + য]। স্ত্রী. ভব্যা। বি. ̃ তা।
67) ভব্যি-যুক্ত (p. 655) bhabyi-yukta বিণ. (কথ্য) ভব্য, ভদ্র, শান্তশিষ্ট। [ সং. ভব্যতাযুক্ত]।
68) ভয় (p. 655) bhaẏa বি. বিপদের জন্য বা বিপদের সম্ভানায় যন্ত্রণাময় মানসিক প্রতিক্রিয়া; ভীতি, শঙ্কা। [সং. √ ভী + অ]। ভয় করা, ভয় খাওয়া ক্রি. বি. ভীত হওয়া। ভয় জন্মানো ক্রি. বি. ভয়ের সৃষ্টি হওয়া; ভীত করা। ̃ .তরাসে বিণ. একটুতেই ভয় পায় এমন (ভয়তরাসে লোক)। ̃ .ভয় ভাঙা ক্রি. বি. ভয় দূর করা বা হওয়া। ভয়ে কেঁচো ভয়ে একেবারে জড়সড়।
69) ভয়ং-কর, ভয়ঙ্কর (p. 655) bhaẏa-ṅkara, bhaẏaṅkara বিণ. 1 ভীতিজনক ভীষণ (ভয়ংকর দৃশ্য); 2 (কথ্য) অত্যন্ত, খুব (ভয়ংকর খিদে পেয়েছে)। [সং. ভয় + √ কৃ + অ। স্ত্রী. ভয়ং-করী।
70) ভয়দ (p. 655) bhaẏada বিণ. ভীতিজনক, ভয়ংকর। [সং. ভয় + √ দা + অ]।

ভয়শূন্য

71) ভয়শূন্য (p. 655) bhaẏa-śūnya বিণ. 1 ভয় পায় না এমন, নির্ভীক (ভয়শূন্য অন্তরে); 2 যাতে ভয় নেই এমন। [সং. ভয় + শূন্য]। বি. ̃ তা।
72) ভয়সা-ভঁইসা (p. 655) bhaẏasā-bham̐isā ও ভঁয়সা -র রূপভেদ।
73) ভয়াতুর (p. 655) bhaẏātura বিণ. ভয়ে কাতর, অত্যন্ত ভীত (ভয়াতুর হৃদয়)। [সং. ভয় + আতুর]।
75) ভয়ানোক (p. 658) bhaẏānōka বিণ. 1 অতি ভয়ংকর, ভীতিজনক (ভয়ানোক দৃশ্য); 2 (কথ্য) খুব, অত্যন্ত (ভয়ানোক দুঃখ পেয়েছে, ভয়ানোক খিদে পেয়েছে)। ☐ বি. (আল.) রসবিশেষ যার স্হায়ীভাব ভয়। [সং. √ ভী + আনক]।
76) ভয়াবহ (p. 658) bhaẏābaha বিণ. ভীতিজনক, ভয়ংকর (ভয়াবহ দুর্ঘটনা, ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড)। [সং. ভয় + আবহ]। বি. ̃ তা।
77) ভয়ার্ত (p. 658) bhaẏārta বিণ. ভয় পেয়েছে এমন, ভীত (ভয়ার্ত শিশু)। [সং. ভয় + ঋত]।
78) ভয়াল (p. 658) bhaẏāla বিণ. ভয়ংকর, অত্যন্ত ভীতিজনক (ভয়াল দৃশ্য, ভয়ালযুদ্ধ)। [সং. ভয় + বাং. আল]।

ভর

79) ভর1, ভোর (p. 658) bhara1, bhōra বিণ. (সচ. শব্দের শেষে) সমস্ত; পূর্ণ (রাতভর গদান, দিনভর বৃষ্টি, জীবনভর যন্ত্রণা ভোগ)। [< ভরিয়া]। ভর-দুপুর বি. গনগনে দুপুর, ঠিক দুপুরবেলা। ভর-সন্ধ্যা বি. ঠিক সন্ধ্যাবেলা। 80) ভর2 (p. 658) bhara2 বি. 1 ভার, ওজন (ভর সহ্য করা, শরীরের ভর); 2 ঠেকনা, নির্ভর, অবলম্বন (দেওয়ালে ভর দিয়ে দাড়ানো, ভাগ্যের উপর ভর করা); 3 (বিজ্ঞা.) পদার্থের মাত্রা, mass. [সং. √ ভৃ + অ]। 81) ভর3 (p. 658) bhara3 বি. পূর্ণতা, আতিশয্য (ভক্তিভরে, স্নেহভরে)। [ভর2 দ্র]। 82) ভর4 (p. 658) bhara4 বি. (লোক বিশ্বাসে) প্রেতযোনি দেবতা প্রভৃতির অধিষ্ঠান (পেতনি ভর করেছে)। [ভর2 দ্র]। 83) ভরণ (p. 658) bharaṇa বি. 1 ভরা, পূর্ণ বা ভরতি করা; 2 পালন করা, প্রতিপালন (ভরণ পোষণ); 3 বেতন। [সং. √ ভৃ + অন]। ̃ .পোষণ বি. অন্নবস্ত্রাদি জুগিয়ে প্রতিপালন। 84) ভরণীয়, ভরণ্য, ভর্তব্য (p. 658) bharaṇīẏa, bharaṇya, bhartabya বিণ. প্রতিপাল্য; পূরণীয়। 85) ভরণপোষণ, ভরণীয়, ভরণ্য (p. 658) bharaṇapōṣaṇa, bharaṇīẏa, bharaṇya দ্র ভরণ। 86) ভরণী (p. 658) bharaṇī বি. (জ্যোতিষ.) নক্ষত্রবিশষ। [সং. ভরণ + ঈ]। 87) ভরত1 (p. 658) bharata1 বি. ভরদ্বাজ গোত্রের পাখিবিশেষ, ভারুই, skylark. [সং. ভরদ্বাজ]। 88) ভরত2 (p. 658) bharata2 বি. 1 রামায়ণে দশরথের দ্বিতীয় পুত্র; 2 রাজর্ষিবিশেষ; 3 নাট্যশাস্ত্রপ্রণেতা মুনি; 4 শকুন্তলার পুত্র। [সং. ভর + √ তন্ + অ]। 89) ভরতা, ভর্তা (p. 658) bharatā, bhartā বি. আলু বেগুন ইত্যাদি সিদ্ধ করে সরষের তেল দিয়ে মেখে তৈরি মুখরোচক তরকারিবিশেষ। [দেশি]। 90) ভরতি, ভর্তি (p. 658) bharati, bharti বি. স্কুল-কলেজ ছাত্র বা ছাত্রী হিসাবে নাম নথিভুক্ত করা (কলেজে ভরতির সমস্যা)। ☐ বিণ. 1 ভরা, পূর্ণ (ভরতি বলতি, বাটি-ভরতি দুধ); 2 পরিপূর্ণ (মাঠটা লোকে ভরতি); 3 নিযুক্ত, বহাল (কাজে ভরতি হওয়া); 4 পড়ার জন্য নথিভুক্ত (কলেজে ভরতি হয়েছে)। [ভরা দ্র]।

ভরসা

101) ভরসা (p. 658) bharasā বি. 1 আস্হা, নির্ভর (আমার উপর ভরসা রাখো); 2 অবলম্বন, আশ্রয় (আপনিই আমার একমাত্র ভরসা); 3 আশ্বাস (‘কূলে একা বসে আছি নাহি ভরসা’: রবীন্দ্র, কোনো ভরসায় চাকরিটা ছাড়লে?)। [হি. ভরোসা]।
102) ভরা (p. 658) bharā ক্রি. 1 পূর্ণ করা (দুধ দিয়ে বালতি ভরছে, ‘চেয়ে থাকি আঁখি ভরে’, প্রাণ ভরে গান শোনো); 2 পরিপূর্ণ হওয়া (জিনিসপত্রে ঘরটা ভরে গেছে, এতেও পেট ভরল না?); 3 ভরতি করা, পোরা (থলিতে জিনিস ভরো)। ☐ বি. ভরতি করা, ভরাট করা (‘মঙ্গলঘট হয়নি যে ভরা’: রবীন্দ্র, বোতলে তেল ভরা শেষ হয়নি)। ☐ বিণ. ভরতি, পূর্ণ (ভরা নদী, ভরা শ্রাবণ, ভরা জোয়ার, গোয়াল-ভরা গোরু, ভরা সাঁঝ)। [সং. √ ভৃ + বাং. আ]। ̃ ট বি. পূর্তি; পূরণ (গর্ত ভরাট করা)। ☐ বিণ. পূর্ণ, পূরিত। ̃ .ডুবি বি. ভরা নৌকো বা বোঝাই নৌকো ডুবে যাওয়া; (আল.) সমূহ সর্বনাশ। ̃ নো ক্রি. বি. 1 পূর্ণ করানো, ভরতি করানো (পেট ভরানোর চিন্তা, পেট ভরাবার চিন্তা); 2 বোঝাই করানো (মাল দিয়ে নৌকা ভরানো)। ভরা নদী বি. তীর পর্যন্ত জলে ছাপিয়ে যায় এমন নদী। ভরা যৌবন বি. পূর্ণ যৌবন। ̃ .ভরতি বিণ. পুরোপুরি ভরতি; একেবারে ভরতি।
103) ভরি (p. 658) bhari বি. সোনারুপোর ওজনের মাপবিশেষ, 1 তোলা, প্রায় 11.664 গ্রাম। [দেশি]।
104) ভরিত (p. 658) bharita বিণ. 1 পূর্ণ, ভরতি; 2 পালিত, প্রতিপালিত। [সং. ভর + ইত]।
105) ভরো-ভরো, ভরো-ভরো (p. 658) bharō-bharō, bharō-bharō বিণ. প্রায় পূর্ণ (নদী ভরোভরো, ‘আউষের ক্ষেত জলে ভরো-ভরো’: রবীন্দ্র)। [ভরা দ্র]।
106) ভর্জন (p. 658) bharjana বি. ভাজার কাজ, ভাজা (ভর্জনপাত্র)। [সং. √ ভ্রস্জ্ + অন]। ̃ .পাত্র বি. ভাজার পাত্র, যে পাত্রে ভাজা হয়। ভর্জিত বিণ. ভাজা হয়েছে এমন (ভর্জিত মত্ স্য )।
107) ভর্তব্য (p. 658) bhartabya দ্র ভরণ।
108) ভর্ত্-সন, ভর্ত্-সনা (p. 658) bhart-sana, bhart-sanā বি. তিরস্কার, ধমক, বকুনি (এই ত্রুটির জন্য তাকে যথেষ্ট ভর্ত্ সনা করা হয়েছে); নিন্দা। [সং. √ ভর্ত্ স্ + অন + আ]। ভর্ত্-সক বিণ. বি. ভর্ত্ সনাকারী । ভর্ত্-সিত বিণ. তিরস্কৃত, নিন্দিত। স্ত্রী. ভর্ত্-সিতা।
109) ভর্তা (p. 659) bhartā (-র্তৃ) বি. 1 স্বামী, পতি; 2 প্রভু, মনিব; 3 রাজা। ☐ বিণ. প্রতিপালনকারী। [সং. √ ভৃ + তৃ]। স্ত্রী. ভর্ত্রী।
110) ভলান-টিয়ার, ভলান্টিয়ার (p. 659) bhalāna-ṭiẏāra, bhalānṭiẏāra বি. স্বেচ্ছাসেবক, স্বেচ্ছাকর্মী। [ইং. volunteer]।

ভরা-কটাল

ভরা-কটাল

বিশেষ্য

  • অমাবস্যা ও পূর্ণিমায় নদী ও সমুদ্রে পূর্ণ জলোচ্ছ্বাস, পূর্ণ জোয়ার।

ভর্তুকি

91) ভরতুকি, ভর্তুকি (p. 658) bhara-tuki বি. ক্ষতিপূরণের জন্য ব্যবসায়ীকে বা কোনো প্রতিষ্ঠান বা সংস্হাকে দেওয়া অর্থ; খেসারত। [দেশি ? তু. ভরা]।
92) ভরদ্বাজ (p. 658) bharadbāja বি. 1 মুনিবিশেষ, দ্রোণের পিতা; 2 ভরত বা ভারুই পাখি; 3 বাঙালি ব্রাহ্মণের গোত্রবিশেষ। [সং. ভরদ + বাজ]।
93) ভরন (p. 658) bharana বি. তামা দস্তা ও রাং মিশিয়ে প্রস্তুত নিকৃষ্ট কাঁসাবিশেষ। [দেশি]।
94) ভরনা (p. 658) bharanā বি. ভার, ভর অবলম্বন, ঠেকানো। [ভর2 দ্র]।
95) ভরন্ত (p. 658) bharanta বিণ. 1 ভরা (ভরন্ত যৌবন); 2 জলে ভরা (‘ভরন্ত ডাবরী’: কৃত্তি)। [ভরা দ্র]।
96) ভর-পুর (p. 658) bhara-pura বিণ. পরিপূর্ণ, পুরোপুরি ভরা (মন আনন্দে ভরপুর, রসেগন্ধে ভরপুর)। [বাং. ভরা + পুরা (পূরা)]।
97) ভর-পেট (p. 658) bhara-pēṭa বিণ. পেট ভরে এমন (ভরপেট ভাত, ভরপেট খাবার)। ☐ ক্রি-বিণ. পেট ভরতি করে (এই অবেলায় ভরপেট খেয়ো না)। [বাং. ভর + পেট]।
98) ভরভর (p. 658) bharabhara দ্র ভরো-ভরো।
99) ভরম (p. 658) bharama বি. 1 সম্ভ্রম, সম্মান (‘সরম-ভরম গেল’: ভা. চ.); 2 ভ্রম -র কোমল রূপ। [তু. ভ্রম]।
100) ভরসন্ধ্যা (p. 658) bharasandhyā দ্র ভর1।

ভলিবল

111) ভলিবল (p. 659) bhali-bala বি. রবারের বড়ো বল নিয়ে উঁচু জালের দুপাশে দুই দলের হাত দিয়ে বল মারার খেলাবিশেষ। [ইং. volly ball]।
112) ভল্ট (p. 659) bhalṭa বি. লম্বা লাঠির সাহায্যে কিংবা হাতে ভর দিয়ে ডিগবাজির মতো লাফানো। [ইং vault]।
113) ভল্ল (p. 659) bhalla বি. বর্শাজাতীয় প্রাচীন অস্ত্রবিশেষ। [সং. √ ভল্ল্ + অ]।
114) ভল্লাত, ভল্লাতক (p. 659) bhallāta, bhallātaka বি. ভেলাগাছ। [সং. ভল্ল + √ অত্ + অ, + ক]।
115) ভল্লুক (p. 659) bhalluka বি. অতি শক্তিশালী রোমশ ও তীক্ষ্ণ নখবিশিষ্ট বন্য প্রাণীবিশেষ, ভালুক। [সং. √ ভল্ল্ + উক]। স্ত্রী. ভল্লুকা, ভল্লুকী।
116) ভসকা (p. 659) bhasakā বিণ. 1 জলবত্, পানসে (ভসকা জামরুল); 2 জমাট নয় এমন, আলগা (ভসকা মাটি)। [দেশি]।
117) ভস-ভস, ভস-ভস (p. 659) bhasa-bhasa, bhasa-bhasa অব্য. নল ইঞ্জিনের চিমনি প্রভৃতি থেকে প্রচুর পরিমানে ধোঁয়া দ্রুত বেরোবার শব্দসূচক (ভসভস করে ধোঁয়া বেরোচ্ছে)। [ধ্বন্যা.]।
118) ভস্ত্রা (p. 659) bhastrā বি. 1 ভিস্তি, জল রাখার বা বহন করার জন্য চামড়ার থলি; 2 কামারের হাপর বা বায়ুযন্ত্র, bellow. [সং. √ ভস্ + ত্র + আ]।
119) ভস্ম (p. 659) bhasma বি. ছাই, কঠিন পদার্থ আগুনে পুড়ে যাবার পর যে পাতলা হালকা পদার্থ অবশিষ্ট থাকে। [সং. √ ভস্ + মন্]। ̃ .কীট বি. অস্বাভাবিক ক্ষুদাযুক্ত কল্পিত কীটবিশেষ; (আল.) যে ব্যক্তির ক্ষুধা সহজে শান্ত হয় না (এত খাই খাই করছ কেন? পেটে কি ভস্মকীট ঢুকেছে?)। ̃ .লিপ্ত বিণ. ছাইমাখা (ভস্মলিপ্ত শরীর)। ̃ .লোচন বি. রামায়ণোক্ত রাক্ষস যার দৃষ্টিপাতে শত্রু পুড়ে ছাই হয়ে যেত। ̃ .সাত্ বিণ. ছাইয়ে পরিণত, পুড়ে ছাই হয়েছে এমন। ̃ .স্তূপ বি. ছাইয়ের গাদা। ভস্মাধার বি. ছাই রাখার পাত্র দাহ করার পর শবদেহের ছাই যে-পাত্রে রাখা হয়। ভস্মাবৃত, ভস্মাচ্ছাদিত বিণ. ছাইয়ে ঢাকা। ভস্মাব-শেষ বি. দগ্ধ পদার্থের যা অবশিষ্ট থাকে। ভস্মী-করণ বি. পুড়িয়ে ছাইয়ে পরিণত করা। বিণ. ভস্মী-কৃত। ভস্মী-ভূত বিণ. সম্পূর্ণ পুড়ে ছাইয়ে পরিণত; (আল.) সম্পূর্ণ ধ্বংসপ্রাপ্ত।
120) ভা (p. 659) bhā বি. 1 দীপ্তি, প্রভা, জ্যোতি। [সং. √ ভাস্ + ক্বিপ্]।

ভাই

121) ভাই (p. 659) bhāi বি. একই মাতাপিতার পুত্র (সহোদর) কিংবা একই পিতার কিন্তু ভিন্ন মাতার পুত্র (বৈমাত্রেয়) কিংবা একই মাতার কিন্তু ভিন্ন পিতার পুত্র; ভ্রাতা; ভ্রাতৃস্হানীয় ব্যক্তি বা তাকে সম্বোধন। [< সং. ভ্রাতৃ]। ̃ ঝি বি. ভাইয়ের মেয়ে। ̃ পো বি. ছোটো ভাইয়ের বা বড়ো ভাইয়ের ছেলে। ̃ .ফোঁটা বি. ভ্রাতৃদ্বিতীয়ায়, কখনো-কখনো প্রতিপদে, বোন কর্তৃক ভাইয়ের কল্যাণকামনায় তার কপালে ফোঁটা দেওয়ার হিন্দু অনুষ্ঠান। ̃ .বউ বি. ভাইয়ের স্ত্রী। ̃ .বেরাদার বি. আত্মীয়স্বজন (ভাইরেরাদার পালাও এখন কাজি)। ভাই ভাই সম্পর্ক ভ্রাতৃতুল্য স্নেহের বন্ধন। 122) ভাই-রাস (p. 659) bhāi-rāsa বি. 1 সবসময় সাধারণ অনুবীক্ষণ যন্ত্রেও দেখা যায় না এত ক্ষুদ্র রোগসৃষ্টিকারী জীবাণু; 2 (কম্পিউটারে) যেসব লুকানো প্রোগ্রাম ক্রমাগত কম্পিউটারে এসে অন্য প্রোগ্রামের ক্ষতি করে। [ইং. virus]। 123) ভাইস-রয় (p. 659) bhāisa-raẏa বি. ইংরেজ আমলের ভারতের সর্বোচ্চ পদাধিকারী রাজপ্রতিনিধিবিশেষ। [ইং. viceroy]। 124) ভাইস-চ্যান্সেলর (p. 659) bhāisa-cyānsēlara বি. বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য। [ইং. vice-chancellor]। 125) ভাও (p. 659) bhāō বি. 1 দাম, দর (ভাও কত?); 2 ভাব, হালচাল। [হি. < সং. ভাব]। 126) ভাওয়াইয়া (p. 659) bhāōẏāiẏā বি. উত্তরবঙ্গের (বিশেষত) মালদহ অঞ্চলে প্রচলিত লোকসংগীতবিশেষ। [দেশি]। 127) ভওলি (p. 659) bhōli বি. জমিদারকে খাজনার বদলে দেয় শস্য। [দেশি]। 128) ভাং (p. 659) bhā বি. সিদ্ধি গাছ বা সেই গাছের পাতা থেকে প্রস্তুত মাদকবিশেষ। [< সং. ভঙ্গা]। 129) ভাংচি (p. 659) bhāñci বি. কাউকে কোনো কাজ থেকে নিরস্ত করবার জন্য কুমন্ত্রণা; ভাঙানি। [সং. ভঙ্গ বা √ ভঞ্জ]। 130) ভাংটা (p. 659) bhāṇṭā বি. (আঞ্চ.) খুচরো পয়সা, ভাঙানি। [ভাঙা]।

ভাগবত

151) ভাগবত (p. 660) bhāga-bata বিণ. 1 ভগবদ্বিষয়ক, ভগবানবিষয়ক; 2 ভগবক্তক। ☐ বি. আঠারোটি পুরাণের অন্যতম। [সং. ভগবত্ + অ]।
152) ভাগা1 (p. 660) bhāgā1 বি. পৃথক পৃথক ভাগ (মাছের ভাগাগুলোর মধ্যে একটা বেছে নাও)। [বাং. ভাগ2 + আ]।
153) ভাগা2 (p. 660) bhāgā2 ক্রি. বি. পালানো (চাকরটা ভেগেছে)। [হি. ভাগ্না]। ̃ নো ক্রি. তাড়িয়ে দেওয়া (কুকুরগুলোকে ভাগাও, ভিখিরিকে ভাগিয়ে দিল)। ☐ বি. উক্ত অর্থে (ভিখিরিকে ওভাবে ভাগানো উচিত হল না)। ☐ বিণ. তাড়ানো হয়েছে এমন।
154) ভাগাড় (p. 660) bhāgāḍ় বি. যে জায়গায় মরা গবাদি পশু ফেলা হয়। [দেশি]।
155) ভাগানো (p. 660) bhāgānō দ্র ভাগা2।
156) ভাগা-ভাগি (p. 660) bhāgā-bhāgi বি. বন্টন, ভাগবাটোয়ারা (আমগুলো নিজেদের মধ্য ভাগাভাগি করে নিল)। [বাং. ভাগ + আ + ভাগ + ই]।
157) ভাগিনেয় (p. 660) bhāginēẏa বি. ছোটো বোনের কিংবা দিদির ছেলে, ভাগনে। [সং. ভগিনী + এয়]। স্ত্রী. ভাগিনেয়ী।
158) ভাগী1 (p. 660) bhāgī1 (-গিন্) বিণ. যে ভাগ নেয় বা পায়, অংশী (সম্পত্তির ভাগী)। [সং. ভাগ + ইন্]। স্ত্রী. ভাগিনী। ̃ .দার বি. অংশীদার।
159) ভাগী2 (p. 660) bhāgī2 বিণ. ভাগ পেতে ইচ্ছুক বা বাধ্য (দোষের ভাগী, নিমিত্তের ভাগী)। [সং. √ ভজ্ + ইন্]। স্ত্রী. ভাগিনী।
160) ভাগী3 (p. 660) bhāgī3 বিণ. (ব্রজ.) ভাগ্যবান (‘সো পাওয়ে বহুভাগী’: বিদ্যা.)। [< সং. ভাগ্য]। 161) ভাগীদার (p. 660) bhāgīdāra দ্র ভাগী1। 162) ভাগ্য (p. 660) bhāgya বি. 1 অদৃষ্ট, নিয়তি, কপাল, বরাত (ভাগ্যে যা আছে হবে); 2 সৌভাগ্য (তোমার কী ভাগ্য ! ভাগ্যবান)। [সং. √ ভজ্ + য]। ̃ .ক্রমে ক্রি-বিণ. ভাগ্যের জোরে, সৌভাগ্যবশত (সে ভাগ্যক্রমে বেঁচে গেছে)। ̃ .গণনা বি. ভবিষ্যত্ শুভাশুভ নির্ণয়। ̃ .গুণে - ভাগ্যক্রমে -র অনুরূপ। ̃ .চক্র বি. পরিবর্তনশীল ভাগ্য, একবার সৌভাগ্য একবার দুর্ভাগ্য এইভাবে পরিবর্তনশীল অদৃষ্ট। ̃ .দেবতা, ̃ .বিধাতা বি. যে-দেবতা ভাগ্য নির্ধারণ করেন। স্ত্রী. ̃ .দেবী, ̃ .বিধাত্রী। ̃ .দোষে ক্রিবিণ. দুর্ভাগ্যের জন্য, দুর্ভাগ্যবশত (রাজা ভাগ্যদোষে একদিন ফকির হয়ে গেলেন)। ̃ .ধর বিণ. ভাগ্যবান। ̃ .নিয়ন্তা বিণ. বি. যিনি ভাগ্য বা অদৃষ্ট স্হির বা নির্ধারণ করেন, ভাগ্যবিধাতা। ̃ .পরীক্ষা বি. ভাগ্যে কী আছে অর্থাত্ ভাগ্য ভালো কি মন্দ তার পরীক্ষা। ̃ .বল বি. ভাগ্যের সহায়তা বা আনুকূল্যে, সৌভাগ্য। ̃ .বান বিণ. সৌভাগ্যবান, যার ভাগ্য ভালো। স্ত্রী. ̃ .বতী। ̃ .বিপর্যয় বি. দুর্ভাগ্য, হঠাত্ বিপদে পড়া, দুরদৃষ্ট। ̃ .রেখা বি. (জ্যোতিষ) হাতের তালুতে ভাগ্যনির্দেশক রেখা। ̃ .লিপি বি. অদৃষ্টের লিখন, কী ঘটবে সে সম্বন্ধে পূর্বাহ্ণে নির্দিষ্ট ভাগ্যের গতি। ̃ .হত বিণ. হতভাগ্য। ̃ .হীন বিণ. হতভাগ্য। স্ত্রী. ̃ .হীনা। ভাগ্যাকাশ বি. ভাগ্যরূপ আকাশ, ভাগ্যরূপে কল্পিত আকাশ। ভাগ্যান্বেষণ বি. সৌভাগ্যের সন্ধান। ভাগ্যদয় বি. সৌভাগ্যের সূচনা। 163) ভাগ্যি (p. 660) bhāgyi (কথ্য) বি. ভাগ্য। ☐ অব্য. ভাগ্য ভালো তাই, ভাগ্যবলে (ভাগ্যি, তুমি সময়মতো এসেছ)। [সং. ভাগ্য]। 164) ভাগ্যিস (p. 660) bhāgyisa অব্য. কপালজোরে, ভাগ্য ভালো বলে, ভাগ্যগুণে (ভগ্যিস সে সময়মতো এসে পড়েছিল)। 165) ভাঙ (p. 660) bhāṅa দ্র ভাং। 166) ভাঙ-চুর (p. 660) bhāṅa-cura বি. ভাঙা ও গুঁড়িয়ে দেওয়া ভেঙে তছনছ করা; লণ্ডভণ্ড (একদল লোক ঘরে ঢুকে ভাঙচুর করেছে)। [বাং. ভাঙা + চুর (চুর্ণ)]। 167) ভাঙড় (p. 660) bhāṅaḍ় বিণ. সিদ্ধিখোর, ভাংখোর। [বাং. ভাং + দড়]। 168) ভাঙন1 (p. 660) bhāṅana1 বি. 1 ভেঙে পড়া, ভাঙা; 2 নদীর পাড় ধসা (ভাঙন-ধরা নদী); 3 (আল.) অবনতি, ক্ষয় বা পতনের সূত্রপাত (সংসারে ভাঙন ধরা)। [ভাঙা দ্র]। 169) ভাঙন2 (p. 660) bhāṅana2 বি. সাদা আঁশওয়ালা লম্বাটে গড়নের সুস্বাদু মাছবিশেষ। [দেশি]। 170) ভাঙা (p. 661) bhāṅā ক্রি. 1 টুকরো বা চূর্ণ করা (কাচ ভাঙা, পাথর ভাঙা); 2 দুর্বল বা হতাশ করা বা হওয়া (খবরটা শুনে সে একেবারে ভেঙে পড়ল); 3 দূর করা বা দূর হওয়া, ঘোচা বা ঘুচানো (ঘুম ভাঙা, মান ভাঙা); 4 বাতিল বা ছিন্ন হওয়া (সম্বন্ধ ভেঙে গেছে); 5 প্রকাশ করা, বুঝিয়ে দেওয়া (কথাটা ভাঙল না, ভেঙে বলো); 6 এলোমেলো হওয়া, আয়ত্তে না থাকা (আইনশৃঙ্খলা ভেঙে পড়া, রেশনব্যবস্হা ভেঙে পড়েছে); 7 ধসে পড়া (দেওয়ালটা ভেঙে পড়েছে); 8 অতিক্রম করা, টপকানো (সিঁড়ি ভাঙা, জলকাদা ভেঙে এগোল); 9 প্রচণ্ড ভিড় জমিয়ে সমবেত হওয়া (বক্তৃতা শুনতে গোটা শহর ভেঙে পড়েছে); 1 তছরূপ করা, চুরি করা (তহবিল ভাঙা)। ☐ বি. উক্ত সব অর্থে (পাথর ভাঙা সহজ নয়; দুঃখে ভেঙে পড়া খুব স্বাভাবিক, আমার পক্ষে সিঁড়ি ভাঙা সম্ভব নয়)। ☐ বিণ. 1 ভেঙেছে এমন (ভাঙাগাছ, ভাঙা দেওয়াল, ভাঙা পা); 2 নষ্ট হয়েছে এমন (ভাঙা সম্বন্ধ, ভাঙা শরীর); 3 ভাঙে এমন (হাড়ভাঙা খাটুনি); 4 হতাশ (ভাঙা মন); 5 মন্দ (ভাঙা কপাল)। [সং. √ ভন্জ্ + বাং. আ]। ভাঙা কপাল জোড়া লাগা ক্রি. বি. দুঃসময় শেষ হয়ে সুসময় আসা। ̃ .গড়া বি. কেনোকিছু ভেঙে ফেলে বা নষ্ট করে আবার নতুন করে তৈরী করা। ̃ .চোরা বিণ. ভেঙে টুকরো হয়ে গেছে এমন; বিনষ্ট (ভাঙা-চোরা টেবিল)। ভাঙা-ভাঙা বিণ. 1 প্রায় ভেঙেছে এমন, ভগ্নপ্রায়; 2 বিকৃত ও অস্পষ্ট (ভাঙা-ভাঙা বাংলায় যা বলল তার মানে এই)। আকাশ ভাঙা ক্রি. বি. প্রবল বৃষ্টি হওয়া (আকাশ ভেঙে বৃষ্টি নামল)। ঘাড় ভাঙা ক্রি. বি. কৌশলে অন্যের খরচে নিজের কাজ হাসিল করা। 171) ভাঙাগড়া, ভাঙাচোরা (p. 661) bhāṅāgaḍ়ā, bhāṅācōrā দ্র ভাঙা। 172) ভাঙানি (p. 661) bhāṅāni বি. 1 ভাংচি দিয়ে প্রতিকূল করা, গোপনে বিরুদ্ধতা করে অসুবিধার সৃষ্টি করা (লাগানি-ভাঙানি); 2 খুচরো পয়সা (দশ টাকার ভাঙানি)। [বাং. ভাঙা + আনি]। 173) ভাঙানো (p. 661) bhāṅānō ক্রি. বি. 1 দূর করা, ঘুচানো (ভয় ভাঙানো, ঘুম ভাঙানো); 2 খুচরো করা (টাকা ভাঙানো); 3 ভাংচি দেওয়া (মন ভাঙানো); 4 কাজে লাগিয়ে বা ব্যবহার করে সুবিধা পাওয়া (বাপের নাম ভাঙিয়ে সুবিধে আদায় করেছে)। [বাং. ভাঙা + আনো]। 174) ভাঙা-ভাঙা (p. 661) bhāṅā-bhāṅā দ্র ভাঙা। 175) ভাঙ্গি1 (p. 661) bhāṅgi1 বিণ. ভাংখোর, ভাঙড়। [দ্র ভাং]। 176) ভাঙ্গি2 (p. 661) bhāṅgi2 বি. মেথর, ধাঙড়। [হি.]। 177) ভাজ (p. 661) bhāja বি. ভাইয়ের স্ত্রী, ভ্রাতৃবধূ। [< সং. ভ্রাতৃজায়া]। 178) ভাজক (p. 661) bhājaka বিণ. ভাগকারী। ☐ বি. (গণি.) যে রাশি দিয়ে ভাগ করা হয়, divisor. [সং. √ ভজ্ + অক]। 179) ভাজন (p. 661) bhājana বি. 1 পাত্র বা আধার (স্নেহভাজন); 2 ভাগ করা (বিভাজন)। [সং. ভাজ্ + অন]। 180) ভাজনা (p. 661) bhājanā বিণ. ভাজার কাজে ব্যবহৃত (ভাজনা খোলা)। [ভাজা দ্র]। 181) ভাজা (p. 661) bhājā ক্রি. গরম তেল-ঘি-ডালডা ইত্যাদিতে শুকনো করে পাক করা (মাছ ভাজছে)। ☐ বি. উক্ত অর্থে (মাছভাজা খাচ্ছে, এত মাছ ভাজা কি সহজ কাজ?)। ☐ বিণ. উক্ত অর্থে (ভাজা মাছ)। [< সং. √ ভ্রস্জ্ + বাং. আ]। 182) ভাজা-ভাজা (p. 661) bhājā-bhājā বিণ. 1 প্রায় ভাজা, কিছুটা ভাজা (আলুর টুকরোগুলো ভাজা-ভাজা হলেই নামাতে হরে); 2 (আল.) জ্বালাতন, বিরক্ত (ছেলেটার দৌরাত্ম্যে একেবারে ভাজা-ভাজা হয়ে গেলাম)। ভাজা-ভুজি বি. নানারকমের ভাজা খাবার (রোজ এতসব ভাজাভুজি খেলে শরীর খারাপ হবে)। 183) ভাজি (p. 661) bhāji বি. ভাজা তরকারি, ভাজা সবজি, শুকনো করে ভাজা সবজি; সচ. ভাতের সঙ্গে খাওয়ার ভাজা সবজি। [বাং. ভাজা + ই]। 184) ভাজিত (p. 661) bhājita বিণ 1 (গণি.) ভাগ করা হয়েছে এমন (পনেরো ভাজিত তিন); 2 বিভক্ত; 3 পৃথক্কৃত, আলাদা করা হয়েছে এমন। [সং. √ ভাজ্ + ত]। 185) ভাজ্য (p. 661) bhājya বিণ. ভাগ বা বিভাজিত করা যায় এমন। ☐ বি. যে রাশিকে অন্য রাশি দিয়ে ভাগ করতে ববে, dividenfd. [সং. √ ভাজ্ + য]। 186) ভাট (p. 661) bhāṭa বি. কোনো অভিজাত বা উঁচু বংশের স্তুতিমূলক পরিচয় গেয়ে শোনানোই যাদের জীবিকা, স্তুতিপাঠক, বন্দনাগানের গায়ক। [< সং. ভট্ট]। 187) ভাটক (p. 661) bhāṭaka বি. 1 গাড়িভাড়া; 2 ভাড়া; 3 বেতন বা মজুরি; 4 কর, খাজনা। [সং. √ ভট্ + অক]। 188) ভাটা, ভাঁটা (p. 661) bhāṭā, bhān̐ṭā বি. 1 নদীতে বা সমুদ্রে জলস্ফীতির হ্রাস; 2 স্বাভাবিক স্রোতের দিক (উজানভাটা); 3 (আল.) অবনতি, পতনের দিকে গতি (যৌবনে ভাটা পড়তে শুরু করেছে)। [দেশি]। 189) ভাটি1 (p. 661) bhāṭi1 বি. 1 ইট পোড়াবার চুল্লি; 2 ধোপার কাপড় সিদ্ধ করবার বড়ো মাটির গামলার মতো পাত্র; 3 মদ চোয়াবার পাত্র বা স্হান (মদের ভাটি)। [তু. হি. ভট্টি < সং. ভ্রষ্ট]। ̃ .খানা বি. যেখানে দেশি মদ চোয়ানো বা চোলাই করা হয়। 190) ভাটিয়ার (p. 661) bhāṭiẏāra বি. সংগীতে ভোরের রাগবিশেষ। [দেশি]। 191) ভাটিয়ালি (p. 661) bhāṭiẏāli বি. মাঝিদের গানের সুরবিশেষ। [বাং. ভাটি আল + ই]। 192) ভাড়া (p. 661) bhāḍ়ā বি. 1 সাময়িক ব্যবহারের জন্য দেয় অর্থ, মাশুল, কেরায়া (গাড়িভাড়া, বাড়িভাড়া); 2 মজুরি (কুলিভাড়া)। ☐ বিণ. ভাড়ার শর্তে ব্যবহৃত (ভাড়াবাড়ি, ভাড়াগাড়ি)। [< সং. ভাটক]। ভাড়া করা ক্রি. বি. ভাড়ার অর্থ দেবার শর্তে অন্যের জিনিস নিজের কাজের জন্য নেওয়া (গাড়ি ভাড়া করেছেন)। 193) ভাড়া খাটা (p. 661) bhāḍ়ā khāṭā ক্রি. বি. ভাড়া নিয়ে অন্যের কাজে লাগা। ̃ .টিয়া, ̃ টে বিণ. 1 ভাড়ার বিনিময়ে পাওয়া যায় এমন (ভাড়াটে বাড়ি); 2 ভাড়া খাটে এমন, ঠিকে (ভাড়াটে গাড়ি, ভাড়াটে লেখক); 3 কেবল অর্থের লোভে অন্যায় বা অনুচিত কাজ করে এমন (ভাড়াটে সাক্ষী)। ☐ বি. ভাড়াটে বাড়ির বাসিন্দা (নতুন ভাড়াটে এসেছে)। 194) ভাণ2 (p. 661) bhāṇa2 বি. সংস্কৃত রূপপক-নাটকবিশেষ। [সং. √ ভণ্ + অ]। 195) ভাণ্ড (p. 661) bhāṇḍa বি. 1 পাত্র, আধার (মৃত্ভাণ্ড); 2 ভাঁড়; 3 পেটিকা; 4 বাদ্যযন্ত্রবিশেষ; 5 মূলধন, পুঁজি। [সং. √ ভণ্ + ড, √ ভণ্ড্ + অ]। 196) ভাণ্ডারা (p. 661) bhāṇḍārā বি. সাধু-সন্ন্যাসীদের জন্য যে ভোজ দেওয়া হয়। < ভাণ্ডার]। 197) ভাণ্ডীর (p. 661) bhāṇḍīra বি. 1 বটগাছ; 2 ভাঁট বা ঘেঁটু গাছ। [সং. ভাণ্ড + √ ঈর্ + অ]। 198) ভাত1 (p. 661) bhāta1 বিণ. দীপ্ত, আলোকিত, উদ্ভাসিত (প্রভাত, প্রতিভাত)। [সং. √ ভা + ত]। 199) ভাত2 (p. 661) bhāta2 বি. ফুটন্ত জলে চাল সিদ্ধ করে প্রস্তুত খাবারবিশেষ, অন্ন। [পা. ভত্ত < সং. ভক্ত]। ̃ .কাপড় বি. অন্নবস্ত্র। 200) ভাত মারা (p. 661) bhāta mārā ক্রি. বি. 1 প্রচুর ভাত খাওয়া; 2 বেকার বসে অন্ন ধ্বংস করা; 3 উপার্জনের পথ বন্ধ করে দেওয়া। ভাতুরে ভাতুড়িয়া বি. বিণ. অন্নের জন্য অপরের গলগ্রহ। ভাতুয়া-ভেতো -র মূল রূপ। ভাতে বিণ. 1 ভাতের সঙ্গে সিদ্ধকরা হয়েছে এমন (আলু ভাতে); 2 গরম ভাতের তাপে সিদ্ধ (মাছ ভাতে)। ☐ বি. ওইভাবে সিদ্ধ করা সবজি বা মাছ। ভাতে-ভাত ভাত ও তার সঙ্গে সিদ্ধ করা সবজি।

ভাঁড়

138) ভাঁড়1 (p. 659) bhān̐ḍ়1 বি. মাটির ছোটো পাত্র (ভাঁড়ের চা, একভাঁড় দই)। [সং. ভাণ্ড]।
139) ভাঁড়2 (p. 659) bhān̐ḍ়2 বি. নাপিতের ছুরি-কাঁচি ইত্যাদি রাখার বাক্সো। [সং. ভাণ্ডি]।
140) ভাঁড়3 (p. 659) bhān̐ḍ়3 বি. বিদূষক হালকা ঠাট্টা পরিহাস করতে ভালোবাসে এমন লোক। [সং. ভণ্ড]।
141) ভাঁড়4 (p. 659) bhān̐ḍ়4 বি. ভাঁড়ার, ভাণ্ডার। [সং. ভাণ্ডাগার]। ভাঁড়ে মা ভবানী (প্রবচন) ভাণ্ডার শূন্য, নিঃস্ব অবস্হা।
142) ভাঁড়ানো (p. 660) bhān̐ḍ়ānō ক্রি. বি. ছলনা বা প্রতারণা করা; সত্য গোপন করা (নাম ভাঁড়িয়েছে)। [সং. ভণ্ড]।
143) ভাঁড়ামি, ভাঁড়ামো (p. 660) bhān̐ḍ়āmi, bhān̐ḍ়āmō বি. (সচ. নিন্দায়) লঘু রঙ্গপরিহাস বা কৌতুক; বিদূষকের আচরণ। [বাং. ভাঁড়3 + আমি, আমো]।
144) ভাঁড়ার (p. 660) bhān̐ḍ়āra বি. ভাণ্ডার; যেখানে খাবার ও অন্যান্য রান্নার জিনিস মজুত করা হয় (ভাঁড়ার ঘর)। [বাং. ভাণ্ডার]।
145) ভাক্ত (p. 660) bhākta বিণ. 1 গৌণ, অপ্রধান (ভাক্ত অর্থ); 2 লাক্ষণিক; 3 ঔপচারিক; 4 কপট (ভাক্ত বৈষ্ণব)। [সং. ভক্তি + অ]।
146) ভাগ1 (p. 660) bhāga1 বি. 1 ভাগ্য -র কোমল রূপ (‘আজু রজনী হাম ভাগে পোহায়নু’: বিদ্যা); 2 (শব্দের শেষে) ভাগ্য (মহাভাগ)।
147) ভাগ2 (p. 660) bhāga2 বি. 1 বাটোয়ারা, বিভাগ (দেশভাগ, সম্পত্তি ভাগ করা); 2 খণ্ড, টুকরো (শতভাগে পরিণত); 3 অংশ, বখরা (আমার ভাগ কই?); 4 কালাংশ (দিবাভাগ); 5 স্হান, প্রদেশ, অঞ্চল (নিম্নভাগ উপরিভাগ); 6 (গণি.) বিভাজন, হরণ (ভাগশেষ)। [সং. √ ভজ্ + অ]। ̃ .চাষি বি. যে চাষি কেবল উত্পন্ন ফসলের ভাগ নিয়ে অন্যের জমি চাষ করে। ̃ .ধেয় বিণ. 1 যে ভাগ পায়, ভাগী; 5 উত্তরাধিকারী, দায়াদ। ☐ বি. 1 ভাগ; 2 রাজস্ব; 3 ভাগ্য। ̃ .ফল বি. এক রাশিকে অপর এক রাশি দিয়ে ভাগ করলে যে ফল পাওয়া যায়, quotient. ̃ .বাটোয়ারা বি. অংশে বন্টন বা ভাগ করে দেওয়া। ̃ .শেষ বি. (গণি.) ভাগ করবার পর রাশির যে অংশ অবশিষ্ট থাকে। ̃ .হর বিণ. অংশগ্রহণকারী। ̃ .হার বি. অংশগ্রহণ। ভাগের মা গঙ্গা পায় না (আল. প্রব.) ভাগাভাগির কাজ ঠিকমতো হয় না।
148) ভাগনা, ভাগনে (p. 660) bhāganā, bhāganē দ্র ভাগনি ও ভাগিনেয়।
149) ভাগনি (p. 660) bhāgani বি. ভগিনীর কন্যা, ছোটো বোনের বা দিদির মেয়ে। [< সং. ভাগিনেয়ী]। পুং. ভাগনা, ভাগনে। 150) ভাগফল, ভাগবাটোয়ারা, ভাগশেষ, ভাগহর (p. 660) bhāgaphala, bhāgabāṭōẏārā, bhāgaśēṣa, bhāgahara দ্র ভাগ2।

ভাতা

201) ভাতা1 (p. 661) bhātā1 বি. 1 অতিরিক্ত বেতন, বেতনের সঙ্গে দেয় অতিরিক্ত অর্থ (দুর্মূল্য ভাতা); 2 বৃত্তি। [< সং. ভৃতি]। 202) ভাতা2 (p. 661) bhātā2 ক্রি. 1 দীপ্তি পাওয়া, শোভা পাওয়া ('নবীন গরিমা ভাতিবে আবার তোর': দ্বি. রা); 2 উদিত হওয়া, প্রকাশ পাওয়া। [সং. √ ভা]। 203) ভাতার (p. 661) bhātāra বি. (অশা. গ্রা.) স্বামী (ভাতারখাকি)। [সং. ভর্তা]। ̃ .খাকি বি. (গালিতে) যে স্ত্রীলোক স্বামীর মৃত্যুর জন্য দায়ী। 204) ভাতি1 (p. 661) bhāti1 বি. 1 উজ্জ্বলতা ('নিশীথে দীপের ভাতী'); 2 কান্তি, শোভা (কনকভাতি); 3 আবির্ভাব, প্রকাশ, উদয় ('যেন ঘোর নিশাভাতি': রবীন্দ্র)। [সং. √ ভা + তি]। 205) ভাতি2 (p. 661) bhāti2 বি. 1 প্রকার, রকম ('প্রিয়বাক্য নানাভাতি': ভক্তমাল গ্রন্হ); 2 নির্মাণ, রচনা; 3 রচনাকৌশল, গঠনরীতি ('দুই লোচন সুভাতি': চৈ. ভা); 4 সাদৃশ্য, তুলনা। [< সং. ভক্তি]। 206) ভাতিজা (p. 661) bhātijā বি. ভাইয়ের ছেলে, ভাইপো। [সং. ভ্রাতৃজ]। 207) ভাতুড়িয়া (p. 661) bhātuḍ়iẏā দ্র ভাত2। 208) ভাতুয়া (p. 661) bhātuẏā দ্র ভেতো। 209) ভদু (p. 661) bhadu বি. বাংলার লৌকিক দেবীবিশেষ যাঁর পূজা হয় ভাদ্র মাসে। [< সং. ভাদ্র]। 210) ভাদ্দর-বউ (p. 661) bhāddara-bu বি. ছোটো ভাইয়ের স্ত্রী, ভাদ্রবধু। [< সং. ভ্রাতৃবধু]। 211) ভাদ্দুরে (p. 661) bhāddurē বিণ. (কথ্য) ভাদ্রমাসীয়। [ভাদ্দর দ্র]। 212) ভাদ্র (p. 661) bhādra বি. বাংলা বছরের পঞ্চম মাস। [সং. ভাদ্রী + অ]। ̃ .পদ বি. ভাদ্র মাস। ̃ .পদা বি. পূর্বভাদ্রপদা নক্ষত্র। ̃ .পদী বি. ভাদ্র মাসের পূর্ণিমা তিথি। 213) ভাদ্র-বধূ (p. 661) bhādra-badhū বি ছোটো ভাইয়ের স্ত্রী। [সং. ভ্রতৃবধু]। 214) ভান1 (p. 661) bhāna1 বি. ছল, কৃত্রিম আচরণ (ঘুমের ভান করা, না দেখার ভান করা)। [সং. √ ভা + অন]। 215) ভান2 (p. 661) bhāna2 বি. 1 দীপ্তি; 2 শোভা, সৌন্দর্য; 3 প্রকাশ; 4 জ্ঞান। [সং. √ ভা + অন]। 216) ভানা (p. 661) bhānā ক্রি. শস্য থেকে তুষ আলাদা করা (ধান ভানা, ধান ভানতে শিবের গীত গাওয়া)। ☐ বি. উক্ত অর্থ (ধান ভানা এখনও চলেছে?)। ☐ বিণ. ভানা হয়েছে এমন (ভানা ধান)। ̃ ই বি. ভানার কাজ বা মজুরি। ̃ নি বি. শস্য তুষমুক্ত করা, ভানাই। ̃ নো ক্রি. বি. অন্যের দ্বারা শস্য তুষমুক্ত করা। 217) ভানু (p. 661) bhānu বি. 1 সূর্য বা সূর্যের কিরণ; রোদ ('জানু-ভানু-কৃশানু শীতের পরিত্রাণ': ক. ক); 2 কান্তি, শোভা। [সং. √ ভা + নু]। ̃ .কর বি. সূর্যের কিরণ; রোদ। ̃ .মতী বিণ. কান্তিময়ী, সুন্দরী। ভানুমতীর খেলা ভোজবাজি, ইন্দ্রজাল, ভেলকি (রাজা বিক্রমাদিত্যের পত্নী ও ভোজরাজ্যের কন্য ভানুমতী জাদুবিদ্যায় পারদর্শিণী ছিলেন বলে)। ̃ .মান বিণ. সূর্য। 218) ভাপ (p. 661) bhāpa বি. 1 গরম বাষ্প (ফুটন্ত জলের ভাপ লেগেছে); 2 তাপ, উত্তাপ (রোদের ভাপ); 3 গরম সেক (চোখে ভাপ দাও); 4 (আল.) মনের আবেগ, হৃদয়াবেগ। [< সং. বাষ্প]। 219) ভাপা (p. 661) bhāpā বিণ. তাপে সিদ্ধ করা হয়েছে এমন (ভাপা ইলিশ)। [বাং. ভাপ + আ]। ভাপানো ক্রি. বি. তাপে সিদ্ধ করা। 220) ভাব (p. 661) bhāba বি. 1 মানসিক অবস্হা (ভাবান্তর); 2 অস্তিত্ব, সত্তা; 3 অভিপ্রায়; 4 জন্ম, উত্পত্তি, সৃষ্টি; 5 স্বভাব, প্রকৃতি (পাশ্চাত্য ভাবাপন্ন); 6 প্রীতি, প্রণয়, সুসম্পর্ক (দুজনের মধ্যে বেশ ভাব আছে); 7 প্রকার, রকম (সম্পূর্ণভাবে, একভাবে); 8 নিগূঢ় অর্থ, অন্তরের কথা, মর্ম (কবিতার ভাব); 9 চিন্তা, ধ্যান (ভাবমগ্ন); 1 ভক্তি, আবেগ (ভাবে বিভোর); 11 অনুভূতির গভীরতা বা আধিক্য, হৃদয়াবেগ, emotion. [সং. √ ভূ + অ]। 221) ভাব করা (p. 663) bhāba karā ক্রি. বি. বন্ধুত্ব স্হাপন করা, সুসম্পর্ক গড়ে তোলা। ̃ .গত বিণ. নিগূঢ় অর্থ বা মর্মসম্বন্ধীয়। ̃ .গতিক, ̃ .ভঙ্গি বি. চালচলন, আচরণ, অভিপ্রায় (ওর ভাবগতিক তো ভালো ঠেকছে না)। ̃ .গম্ভীর বিণ. গভীর ভাবযুক্ত (ভাবগম্ভীর পরিবেশে অনুষ্ঠানটি সম্পন্ন হল)। ̃ .গর্ভ বিণ. গভীর ভাবপূর্ণ তাত্পর্যপূর্ণ (ভাবগর্ভ রচনা, ভাবগর্ভ প্রবন্ধ)। ̃ .গ্রাহী (-হিন্) বিণ. মর্ম বা ভাব বা নিগূঢ় অর্থ বুধতে পারে এমন, মর্মগ্রাহী, তাত্পর্য বুঝতে পারে এমন (ভাবগ্রাহী পাঠক) । ̃ .তরঙ্গ বি. ভাবের উচ্ছ্বাস, মনের আবেগের আধিক্য। ̃ .ধারা বি. চিন্তাভাবনার রীতি, চিন্তাধারা, প্রচলিত মতামত ও রীতি (স্বামীজির ভাবধারায় অনুপ্রাণিত)। ̃ .প্রবণ বিণ. অনুভূতির আধিক্যযুক্ত, আবেগপরায়ণ; ভাবুক। বি. ̃ .প্রবণতা। ̃ .বিলাসী বিণ. কল্পনাপ্রিয়, ভাবুক। ̃ .ভঙ্গি দ্র ভাবগতিক। ̃ .ব্যঞ্জক, ̃ .সূচক বিণ. ভাব বা মনোভাবপ্রকাশক, অর্থপ্রকাশক। ̃ .মূর্তি বি. ধ্যন বা কল্পনার দ্বারা রচিত মূর্তি, image. ভাবাত্মক বিণ. ভাবপূর্ণ, ভাবময়; ভাবপ্রকাশক। ভাবানুগ বিণ. ভাব-অনুযায়ী, স্বভাবানুয়ায়ী স্বাভাবিক। ভাবানু-ষঙ্গ বি. কোনো এক বিষয় চিন্তার সময় সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিষয়ের চিন্তা বা অন্যান্য সংশ্লিষ্ট বিষয়ে চিন্তার উদয়, association of ideas. ভাবান্তর বি. মানসিক অবস্হার পরিবর্তন (তার কোনো ভাবান্তর দেখলাম না)। ভবাপন্ন বিণ. ভাবযুক্ত, ভাবযুক্ত (পাশ্চাত্য ভাবাপন্ন)। ভবাবেগ, ভাবাবেশ বি. হৃদয়াবেগজনিত বিহ্বলতা, ভাবের উদ্রেক বা সঞ্চার, মুগ্ধতা। ভাবার্থ বি. নিগূঢ় অর্থ, মর্ম, মূল অর্থ; তাত্পর্য (কবিতার ভাবার্থ)। ভাবালু বিণ. ভাবুক, ভাবপ্রবণ, কল্পনাপ্রবণ (কবিরা স্বভাবতই একটু ভাবালু হন)। বি. ভাবালুতা। ভাবোচ্ছ্বাস বি. প্রবল আবেগ বা ভাবের প্রকাশ। ভাবোদয়, ভাবোন্মেষ বি. ভাবের সঞ্চার (মনে নতূন ভাবোদয় হওয়া)। ভাবোদ্দীপক বিণ. ভাব সঞ্চারকারী, ভাবের প্রেরণাদায়ক। ভাবোদ্দীপন বি. ভাবের সঞ্চার। ভাবোন্মত্ত বিণ. ভাবে বিভোর, ভাবে অভিভূত। ভাবোন্মাদ বি. ভাবজনিত বিহ্বলতা বা মত্ততা। 222) ভাবক (p. 663) bhābaka বিণ. 1 যে ভাবে বা চিন্তা করে, চিন্তক, চিন্তাকারী; 2 উত্পাদক। [সং. √ ভূ + ণিচ্ + অক]। 223) ভাবন (p. 663) bhābana বিণ. 1 চিন্তা করা, চিন্তন; 2 কল্পনা বা ধ্যান করা; 3 সৃজন; 4 প্রসাধন করা বা সজ্জিত করা; 5 ওষুধ ইত্যাদির শোধন বা সংস্কার। [সং. √ ভূ + ণিচ্ + অন]। ভাবনীয় বিণ. চিন্তনীয়; উদ্ভাবনযোগ্য। 224) ভাবনা (p. 663) bhābanā বি. 1 চিন্তা, বিবেচনা (এ বিষয়ে তোমার ভাবনাটা কীরকম?); 2 দুশ্চিন্তা, উদ্বেগ (ছেলেটার জন্য ভাবনা হচ্ছে); 3 ওষুধ ইত্যাদি বারবার চূর্ণ করা ও শোধন করা। [সং. √ ভূ + ণিচ্ + অন + আ]। 225) ভাবনীয় (p. 663) bhābanīẏa দ্র ভাবন। 226) ভাব-বাচ্য (p. 663) bhāba-bācya বি. 1 বাক্যের যে রূপে ক্রিয়া কর্তার ভূমিকা নেয়; 2 (কৌতু.) সরাসরি না বলে ইঙ্গিতে বা পরোক্ষে বলা (ওরা এখনও ভাববাচ্যে কথা চালিয়ে যাচ্ছে)। [সং. ভাব + বাচ্য]। 227) ভাব-বাদ (p. 663) bhāba-bāda বি. ভাবই জগতের মূল চালিকা শক্তি-এই দার্শনিক মত, idealism. [সং. ভাব + বাদ]। ভাব-বাদী (-দিন্) বি. বিণ. যে ভাববাদে বিশ্বাস করে। 228) ভাবা (p. 663) bhābā ক্রি. 1 চিন্তা করা (কী ভাবছ:); 2 দুশ্চিন্তা করা (অত ভেবে কী হবে?); 3 বিচার-বিবেচনা করা (একটু ভেবে দেখি); 4 সংকল্প করা (চাকরিটা ছাড়ব ভেবেছি); 5 অনুমান করা (ভবাছি বৃষ্টি হবে কি না); 6 গণ্য করা (পণ্ডিত ভাবা); 7 উদ্ভাবন করা (একটা উপায় ভাবো)। [< সং. ভাবি]। ̃ নো ক্রি. বি. চিন্তিত বা উদ্বিগ্ন করা (ভাবিয়ে তোলা, ওকে এত ভাবাচ্ছ কেন?)। 229) ভাবাত্মক, ভাবান্তর, ভাবাবেগ, ভাবাবেশ, ভাবার্থ, ভাবালু (p. 663) bhābātmaka, bhābāntara, bhābābēga, bhābābēśa, bhābārtha, bhābālu দ্র ভাব। 230) ভাবিক (p. 663) bhābika বিণ. 1 উদ্দীপক; 2 স্বাভাবিক; 3 ভাবযুক্ত; 4 ভবিষ্যত্-সম্বন্ধীয়। ☐ বি. কাব্যের অলংকারবিশেষ। [সং. ভাব + ইক]। 231) ভাবিত (p. 663) bhābita বিণ. 1 চিন্তিত; 2 উদ্বিগ্ন (তার জন্য একটু ভাবিত হচ্ছি); 3 প্রাপ্ত বা প্রাপিত; 4 শোধিত বা রঞ্জিত; 5 প্রকটিত (কৃষ্ণের চরিত্র গীতার ভাবের দ্বারা ভাবিত)। [সং. √ ভূ + ণিচ্ + ত]। 232) ভাবিনী (p. 663) bhābinī বি. কামিনী, ভাবময়ী নারী ('ভাবের ভাবিনী রাধা')। [সং. ভাব + ইন্ + ঈ]। 233) ভাবী (p. 663) bhābī (-বিন্) বিণ. ভবিষ্যত্, আগামী (ভাবী জামাই, ভাবী জীবন, ভাবী কাল, ভাবী বংশধর)। [সং. √ ভূ + ইন্]। স্ত্রী. ভাবিনী। 234) ভাবুক (p. 663) bhābuka বিণ. 1 কল্পনাপটু; 2 চিন্তাশীল (ভাষাভাবুক); 3 ভাবগ্রাহী; 4 অতিরিক্ত ভাবপ্রবণ। [সং. √ ভূ + উক]। বি. ̃ তা। 235) ভাবুনে (p. 663) bhābunē বিণ. 1 বিলাস প্রিয়, প্রসাধনপ্রিয়; 2 রঙ্গরসপ্রিয়; 3 কপটতাপ্রিয়। [সং. ভাবন + বাং. ইয়া > এ]।
236) ভাবোচ্ছ্বাস, ভাবোদয়, ভাবোদ্দীপক, ভাবোদ্দীপন, ভাবোন্মত্ত, ভাবোন্মাদ (p. 663) bhābōcchbāsa, bhābōdaẏa, bhābōddīpaka, bhābōddīpana, bhābōnmatta, bhābōnmāda দ্র ভাব।
237) ভাব্য (p. 663) bhābya বিণ. 1 চিন্তনীয়, ভাববার মতো (ভাব্য বিষয়); 2 অবশ্যই হবে এমন, অবশ্যম্ভাবী, ভবিতব্য; 3 সাধ্য, নিষ্পাদ্য, নিষ্পন্ন করতে হবে এমন। [সং. √ ভূ + য]।
238) ভাম (p. 663) bhāma বি. খট্টাশ বা খটাশজাতীয় জন্তুবিশেষ। [দেশি]।
239) ভামিনী (p. 663) bhāminī বি. 1 কোপস্বভাবা নারী, রাগী স্ত্রীলোক; 2 নারী। [সং. ভাম + ইন্ + ই]।
240) ভায় (p. 663) bhāẏa ক্রি. (কাব্য) 1 দীপ্তি বা শোভা পায় (‘হাসিখানি তাহে ভায়’); 2 ভালো লাগে (‘মোর মনে আন নাহি ভায়’: অ. গু)। [বাং. √ ভা (< সং. ভা)]। 241) ভায়া (p. 663) bhāẏā বি. ভাই বা ভ্রাতৃতুল্য ব্যক্তিকে প্রিয়সম্বোধন। [বাং. ভাই]। 242) ভায়াদ (p. 663) bhāẏāda বি. জ্ঞাতিভাই সহোদর না হলেও ভ্রাতৃসম্পর্কযুক্ত ব্যক্তি। [> ভাই]।
243) ভার (p. 664) bhāra বি. 1 ওজন (লঘুভার); 2 বোঝা, মোট (ভারবাহী); 3 চাপ, উদ্বেগ (দুঃখের ভার, ঋণে ভার); 4 দায়িত্ব (কাজের ভার); 5 রাশি, সমূহ (কেশভার); 6 বোঝা বহনের জন্য ব্যবহৃত লাঠিবিশেষ, বাঁক (ভার কাঁধে দইওয়ালা)। ☐ বিণ. 1 ভারী, অধিক ওজনবিশিষ্ট (বড়ো ভার এটার); 2 বোঝাস্বরূপ (সংসারের ভার হয়ে থাকা); 3 গম্ভীর, অপ্রসন্ন (মুখ ভার করা); 4 অসুস্হ (পেট ভার); 5 দুষ্কর (চেনা ভার); 6 দুঃখে বা অভিমানে বিষাদগ্রস্ত (মুখ ভার)। [সং. √ ভৃ + অ]। ̃ .কেন্দ্র বি. গুরুত্বের বা ভারের ব্যাপ্তির মধ্যবিন্দু। ̃ .প্রাপ্ত বিণ. দায়িত্ব পেয়েছে এমন, দায়িত্বযুক্ত (ভারপ্রাপ্ত অফিসার)। ̃ .বাহ, ̃ .বাহক, ̃ .বাহী (-হিন্) বিণ. ওজন বা বোঝা বহন করে এমন (ভারবাহী পশু)। ̃ .যষ্টি বি. বাঁক। ̃ .সহ বিণ. ওজন বা ভার সহ্য করতে পারে এমন। ̃ .সাম্য বি. 1 বিভিন্ন দিকের ওজনের সমতা; 2 মানসিক স্হৈর্য বা অবিচলতা; 3 দুই পক্ষের শক্তির সমতা, balance of power. ̃ .হীন বিণ. হালকা। ভারাক্রান্ত বিণ. 1 ভারের আধিক্যযুক্ত (অশ্রুভারাক্রান্ত নয়ন); 2 চিন্তাক্লিষ্ট বা দুঃখক্লিষ্ট (ভারাক্রান্ত হৃদয়ে তাঁকে বিদায় জানালাম)। ভারার্পণ বি. দায়িত্ব দেওয়া।
244) ভারত (p. 664) bhārata বি. 1 ভারতবর্ষ; 2 বর্তমান ভারতরাষ্ট্র; 3 মহাভারত (যা নেই ভারতে তা নেই ভারতে); 4 ভারত-সূত্র; 5 নট। ̃ .বাসী (-সিন্) বি. বিণ. ভারতের অধিবাসী। ভারতীয় বিণ. 1 ভারতসম্বন্ধীয় (ভারতীয় পোশাক); 2 ভারতে উত্পন্ন বা বসবাসকারী (ভারতীয় বস্ত্র, ভারতীয় গম)। ☐ বি. ভারতের অধিবাসী বা নাগরিক (ভারতীয়দের সংগ্রাম)। বি. ̃ তা, ̃ ত্ব। ভারত মহাসাগর ভারতের দক্ষিনে অবস্হিত মহাসাগরবিশেষ, the Indian Ocean. ̃ .মাতা বি. মাতা রূপে কল্পিত ভারতভূমি।
245) ভারত-নাট্যম (p. 664) bhārata-nāṭyama বি. দক্ষিণ ভারতে উদদ্ভূত সুবিখ্যাত ধ্রুপদী নৃত্য শৈলীবিশেষ।
246) ভারত-বর্ষ (p. 664) bhārata-barṣa বি. হিমালয় প্রর্বতমালার দক্ষিণে অবস্হিত তিন দিকে সমুদ্রবেষ্টিত দেশ। [সং. ভারত + বর্ষ]।
247) ভারত-বর্ষীয় (p. 664) bhārata-barṣīẏa বিণ. ভারতবর্ষসম্বন্ধীয়।
248) ভারতী (p. 664) bhāratī বি. 1 সরস্বতীদেবী; 2 বাণী, বাক্য, কথা; 3 ভাষা; 4 সংবাদ, বিবরণ; 5 সন্ন্যাসীসম্প্রদায়বিশেষের উপাধি। [সং. ভারতী + অ + ঈ + √ ভৃ + অত + ঈ]।
249) ভারতীয়, ভারতীয়তা, ভারতীয়ত্ব (p. 664) bhāratīẏa, bhāratīẏatā, bhāratīẏatba দ্র ভারত।
250) ভারপ্রাপ্ত, ভারবাহ, ভারবাহী (p. 664) bhāraprāpta, bhārabāha, bhārabāhī দ্র ভার।

ভারতচন্দ্র রায় গুণাকর

ভারতচন্দ্র রায় (১৭১২-১৭৬০) মধ্যযুগের সর্বশেষ কবি, আধুনিক বাংলা সাহিত্যের অগ্রদূত। তাঁর পিতা নরেন্দ্রনারায়ণ রায় (মুখার্জি) জমিদার ছিলেন। তিনি হাওড়া জেলার পেন্ড্রো গ্রামে বাস করতেন। তাঁর পিতৃপুরুষ প্রতাপনারায়ণ সুপরিচিত ব্যক্তি ছিলেন। ধর্মমঙ্গলের রচয়িতা রামদাস তাঁর আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থে প্রতাপনারায়ণের কথা উল্লেখ করেন। ভারতচন্দ্রের মাতা ভবাণী দেবী।

ভারতচন্দ্রের পূর্বপুরুষেরা বিত্তবান এবং ক্ষমতাশালী হওয়ায় সমাজে তাঁরা রায় পরিবার নামে সম্মানিত ছিলেন। স্থানীয় লোকজন তাঁদের রাজা হিসেবে ডাকতেন। তাঁদের রাজপ্রাসাদ চারদিকে জলপূর্ণ গভীর ও প্রশস্ত পরিখা দ্বারা পরিবেষ্টিত ছিল। স্থানীয় জনশ্রুতি অনুসারে, নরেন্দ্রনারায়ণের কোনো এক আচরণে বর্ধমানের মহারানী (মৃত স্বামীর পদবি/সম্পদ-সংক্রান্ত ব্যাপারে) মনে আঘাত পান। ফলে মহারানী নরেন্দ্রনারায়ণের পেন্ড্রোর রাজপ্রাসাদ বলপূর্বক দখল করেন এবং তাঁকে আর্থিক সংকটে ফেলে দেন। নরেন্দ্রনারায়ণের চার পুত্রের মধ্যে ভারতচন্দ্র কনিষ্ঠ ছিলেন। কবি ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্ত ভারতচন্দ্রের জন্ম সাল ১৭১২ বলে মনে করেন। বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে ভারতচন্দ্রের এ জন্ম সালটি স্বীকৃত।

বর্ধমান রাজাদের সঙ্গে দ্বন্দ্ব চলাকালে ভারতচন্দ্র পালিয়ে তাজপুরে মামার বাড়িতে চলে যান। এখানেই তিনি সংস্কৃত অধ্যয়ন শুরু করেন এবং সারদা গ্রামের কেশরকুনি আচার্য বংশের এক কন্যাকে বিয়ে করেন। সেসময় সরকারি চাকরিতে উচ্চপদ লাভের জন্য ফারসি ভাষায় দক্ষ ব্যক্তিদের অগ্রাধিকার দেওয়া হতো। এটা লক্ষ করে ভারতচন্দ্র ফারসি শিক্ষার জন্য আগ্রহী হয়ে ওঠেন এবং হুগলি জেলার পশ্চিম দেবান্দপুর গ্রামের বিখ্যাত ফারসি পন্ডিত কায়স্থ বংশীয় রামচন্দ্র মুন্সির নিকট গমন করেন। সেসময়ের প্রচলিত প্রথা অনুসারে গুরু মহাশয়কে ছাত্রের ভরণপোষণের দায়িত্ব নিতে হতো। রামচন্দ্র মুন্সি এতে সম্মত হলে ভারতচন্দ্র অত্যন্ত কঠিন শ্রমে তাঁর কাছে ফারসি ভাষায় ব্যুৎপত্তি লাভ করেন।

ভারতচন্দ্রের প্রথম কাব্য ছিল বিমিশ্র দেবতা সত্যনারায়ণের সম্মানে রচিত একটি পাঁচালি। সত্যনারায়ণকে মনে করা হতো ফকির রূপী বিষ্ণুর অবতার। মুন্সি পরিবার কর্তৃক আয়োজিত সত্যনারায়ণের উৎসব উপলক্ষে এ পাঁচালি রচিত। জনৈক হীরারাম রায়ের অনুরোধে তিনি এ দেবতার ওপর আরও একটি সংক্ষিপ্ত পাঁচালি রচনা করেন। তরুণ বয়সে রচিত এ দুটি রচনার মধ্যে তাঁর কবি প্রতিভার পরিচয় পাওয়া যায়। ভারচন্দ্রের তরুণ বয়সের এ রচনার একটি আকর্ষণীয় বৈশিষ্ট্য ছিল অত্যন্ত নির্খঁুত ও স্বাধীনভাবে বাংলা ভাষায় ফারসি ও উর্দু শব্দের ব্যবহার। তাঁর পরবর্তী রচনাবলিতে এটি একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্যরূপে দেখা দেয়। তিনি সবার কাছে একজন ফারসি পন্ডিত হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন। এ খ্যাতি নিয়ে তিনি বাড়ি ফিরে আসলে তাঁর আত্মীয়-স্বজন তাঁকে সাদরে গ্রহণ করেন।

বর্ধমান মহারাজার নিকট থেকে ভারচন্দ্রের পিতা কিছু জমি ইজারা নিয়েছিলেন। ভারচন্দ্রকে এগুলি দেখাশুনার দায়িত্ব দেওয়া হয়। কিন্তু তাঁর ভাইয়েরা এসব জমির রাজস্ব সময়মতো পরিশোধ করতে ব্যর্থ হলে মহারাজা জমি ফেরত নিয়ে যান এবং বর্ধমান কোর্টের ষড়যন্ত্রে ভারতচন্দ্র কারারুদ্ধ হন। কারারক্ষীর সঙ্গে সুসম্পর্ক থাকায় কারারক্ষী তাঁকে পালিয়ে যেতে সহায়তা করে। ভারতচন্দ্র পালিয়ে উড়িষ্যায় যান। উড়িষ্যা সেসময় মহারাষ্ট্রের অধীন ছিল। ভারতচন্দ্র উড়িষ্যার পুরীতে আশ্রয় চেয়ে স্থানীয় শাসকের কাছে আবেদন করেন। তাঁর আবেদন মঞ্জুর হয় এবং তিনি কিছুদিনের জন্য পুরীতে থাকার অনুমতি লাভ করেন। এমনকি স্থানীয় সরকার তাঁর থাকা-খাওয়ারও ব্যবস্থা করেন। পুরীতে ভারতচন্দ্র বৈষ্ণবদের সঙ্গ লাভ করে কিছুকাল সন্ন্যাসীর মতো জীবনযাপন করেন।

বৃন্দাবনে যাওয়ার পথে ভারতচন্দ্র কৃষ্ণনগরের নিকট খানাকুল গ্রামে কিছুদিন অবস্থান নেন। এ গ্রামে তাঁর ভগ্নিপতি বাস করতেন। তাঁরা তাঁকে সন্ন্যাস জীবন ছেড়ে পারিবারিক জীবনে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করেন। পরে তিনি চন্দননগরে ফরাসি জায়গিরে গমন করেন। এখানে তিনি ফরাসি কোম্পানির দেওয়ান ইন্দ্রনারায়ণ চৌধুরীর বন্ধুত্ব লাভ করেন। ইন্দ্রনারায়ণ ভারতচন্দ্রকে সাহায্য করার প্রতিশ্রুতি দেন এবং তিনি কিছুদিন ডাচ কোম্পানির দেওয়ান রামেশ্বর মুখার্জির সঙ্গে গোনডাল পাড়ায় বসবাস করেন। ইন্দ্রনারায়ণ তাঁর বিশিষ্ট বন্ধু নবদ্বীপ-কৃষ্ণনগরের মহারাজা কৃষ্ণচন্দ্র রায়ের সঙ্গে তাঁকে পরিচয় করিয়ে দেন। মহারাজা কবির পান্ডিত্য ও ব্যবহারে মুগ্ধ হন এবং তাঁকে ৪০ টাকা মাসোহারা দিয়ে আমত্য বা রাজসভাসদ পদে নিয়োগ দেন। মহারাজা তাঁকে ‘গুণাকর’ অর্থাৎ ‘সকল গুণের আধার’ উপাধিতে সম্মানিত করেন। কবি প্রায়ই তাঁকে কবিতা শুনিয়ে আনন্দ দিতেন। মহারাজা তাঁর কবি প্রতিভায় অত্যন্ত সন্তুষ্ট হয়ে তাঁকে সতের শতকের কবি মুকুন্দরামের চন্ডীমঙ্গলের অনুকরণে অন্নদামঙ্গল রচনার নির্দেশ দেন। এ নির্দেশ পেয়ে ভারতচন্দ্র অন্নদামঙ্গল রচনা করেন, যা মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যের বিখ্যাত কাব্য। রাজা কৃষ্ণচন্দ্র এ কাব্য রচনা পড়ে খুশি হন এবং এতে বিদ্যা ও সুন্দরের কাহিনী সংযোজনের নির্দেশ দেন। কবি তাঁর এ নির্দেশ মেনে নেন এবং কৃষ্ণনগর পরিবারের একটি কাহিনীও এতে সংযোজন করেন। রাজা কৃষ্ণচন্দ্র তাঁকে সভাকবি নিযুক্ত করেন এবং জমি দান করে মুলাজোরে বসবাসের ব্যবস্থা করেন। ভারতচন্দ্র সেখানে ১৭৬০ সাল পর্যন্ত বসবাস করে ৪৮ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তিনি পরীক্ষিত, রামতনু এবং ভগবান নামে তিন পুত্র রেখে যান।

অন্নদামঙ্গল কাব্য ছাড়া ভারতচন্দ্রের কিছু গৌণ বা অপ্রধান রচনাও রয়েছে যা সাধারণ পাঠকের নিকট কম পরিচিত। এর মধ্যে রয়েছে গঙ্গাষ্টক নামে একটি সংস্কৃত কাব্য এবং অন্যটি মিথিলার ভানু দত্তের কাব্যের অনুবাদ রসমঞ্জরী। জনৈক নীলমণি দীনদেশাই কৃষ্ণচন্দ্রের সভায় অন্নরূপমঙ্গল বা অন্নদামঙ্গল কাব্যটি সংগীতাকারে পরিবেশন করেছিলেন। তাঁর পরবর্তী কাব্যের মধ্যে রয়েছে সংস্কৃত ও বাংলা ভাষায় রচিত নাগষ্টক কাব্য। এটি মহারাজার ইজারাদার রামদেব নাগের গুণকীর্তন করে রচিত। তাঁর পরবর্তী জীবনের ফারসি ও হিন্দুস্থানী ভাষা মিশিয়ে রচিত বিক্ষিপ্ত বাংলা কাব্যগুলি পাঠ করলে হাস্যকৌতুকের উদ্রেক হয়।

ভারতচন্দ্রের অন্নদামঙ্গল কাব্যের ৩টি খন্ড। প্রথম খন্ড, সতীর সঙ্গে শিবের বিবাহ এবং তাঁর পিতা দক্ষ কর্তৃক আয়োজিত মহাযজ্ঞের ধ্বংসলীলার উপাখ্যান। দ্বিতীয় খন্ড, কালকেতু এবং তার উপাসনার মধ্য দিয়ে দেবী অন্নদার পৃথিবীতে আবির্ভাবের উপাখ্যান, এবং তৃতীয় খন্ড, বর্ধমানের রাজকন্যা বিদ্যা এবং যুবরাজ সুন্দরের কলঙ্কজনক অবৈধ প্রণয়-উপাখ্যান। ভারতচন্দ্র তাঁর প্রতিভাদ্বারা এ তিনটি খন্ডের মধ্যে সেতুবন্ধন রচনা করেন।

ঊনবিংশ শতাব্দীর কলকাতায় ভারতচন্দ্র অত্যন্ত জনপ্রিয় ছিলেন। কিন্তু পাশ্চাত্য শিক্ষায় শিক্ষিত নব-অভিজাত সম্প্রদায় তাঁর কাব্য বর্ণনায় এক ধরনের প্রত্যক্ষ যৌন অশ্লীলতা লক্ষ করেন। অবশ্য কিছু আধুনিক সমালোচক তাঁর যৌন কামনা উদ্রেককারী রচনায় প্রশংসনীয় গুণাবলিও লক্ষ করেন। সংস্কৃত থেকে উদ্ভূত ছন্দ নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা এবং ফারসি ও উর্দু শব্দের বহুল ব্যবহার তাঁর কবিতাকে বিশিষ্টতা দান করেছে। তাঁর কিছু কবিতা একটি বিশেষ রীতির অনুবর্তী হলেও নিঃসন্দেহে তিনি বাংলা ভাষার অন্যতম বড় কবি।

লেখক: তপন রায়চৌধুরী