এযাবৎ 940 টি ভুক্তি প্রকাশিত হয়েছে।

প্রকাশিত ভুক্তি 940 টি।

এ পাতায় আছে 50 টি।

অকারণসঞ্জাত [সংস্কৃত ন = অ + কারণ + সম্‌ + জাত।] বিশেষণ অহেতুক সৃষ্ট। ‘অকারণসঞ্জাত উচ্চহাসি হাসিলাম।‘ বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, ১৮৭৪।
অকারণে [সংস্কৃত ন = অ + কারণ + বাংলা এ (বাংলায় অকারণ অর্থে প্রচলিত)] ক্রিয়া-বিশেষণ বিনা কারণে। ‘তোহ্মে মোর নাহিঁ কাজ মোর পাশ আইস অকারণে।‘ বড়ু চণ্ডীদাস, ১৪৫০। বিনা প্রয়োজনে। ‘তাঁহার অন্তকরণ অকারণে শঙ্কিত ও সঙ্কুচিত হইবার নয়।‘ অক্ষয়কুমার দত্ত, ১৮৪৮। [অ, দ্রষ্টব্য] এই কারণে।
অকারত [অ + ফারসী কার + সংস্কৃত ত] বিশেষণ অনর্থক। ‘হামজা বলে সব অকারত।‘ সৈয়দ হামজা, ১৮০৭।
অকারাদি [সংস্কৃত অকার + আদি। অবর্ণ আদিতে যার – বহুব্রীহি সমাস] বিশেষণ যে শব্দ বা বাক্যের প্রথমেই অ আছে। বিশেষ্য বর্ণানুক্রম –‘অ’ থেকে ‘হ’ পর্যন্ত ক্রমানুসারে বর্ণ বা শব্দগুচ্ছ সাজানোর পদ্ধতি।
অকারান্ত [সংস্কৃত অকার + অন্ত যার – বহুব্রীহি সমাস] বিশেষণ যে শব্দের অন্তে অকার আছে বা অন্ত্যক্ষর অকার যুক্ত (দেহ, হস্ত, দৈব ইত্যাদি) শব্দের শেষে ‘অ’ ধ্বনিযুক্ত। ‘সমভাবে উচ্চারিত অকারান্ত শব্দের একত্রে …।‘ প্রমথ চৌধুরী, ১৮৯০। [দ্রষ্টব্য – বাংলায় অন্ত্য অকার প্রায়ই অনুচ্চারিত]।
অকারী [সংস্কৃত] বিশেষণ অক্রিয়। ‘সে ম্যুজিয়ম আমাদের শান্তিনিকেতনের লাইব্রেরির মতো অকারী (passive) নয়, সকারী (active)।‘ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ১৯৩১।
অকার্জ, অকার্জ্জ [সংস্কৃত অকার্য] বিশেষ্য বাজে কাজ। ‘প্রবাদ ফলাইল মুই করিয়া অকার্জ্জ।‘ কবীন্দ্র পরমেশ্বর, ১৬৮৯।
অকার্য, অকার্য্য [সংস্কৃত ন = অ (অবৈধ, কুৎসিত নিষ্প্রয়োজনীয়) কার্য] বিশেষ্য, অকর্তব্য কার্য; অবৈধ কর্ম; অসত্কার্য; কুকর্ম; গর্হিত কর্ম; অনৈতিক কাজ৷ ‘শাস্ত্রকারেরা গর্হিত অকার্য্য দ্বারা সুহৃদের প্রাণরক্ষা কর্ত্তব্য বলিয়া থাকেন” কাদম্বরী, ১৮৫৩। বৃথা কার্য; নিরর্থক কাজ৷ ‘তদ্ভিন্ন আর সকল ধর্মই কাল্পনিক, আর সকল কার্য্যই অকার্য্য৷’ অক্ষয়কুমার দত্ত, ১৮৫8। অসৎ কাজ। ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, ১৮৬৪। বিশেষণ, অকরণীয়; অননুষ্ঠেয়। ‘তারা যেরূপ দুর্ব্বৃত্ত তা’তে মনে হয় তাদের অকার্য্য কিছুই নাই।
অকার্যকর, অকার্য্যকর [সংস্কৃত ন = অ + কার্য্য + কর] বিশেষণ কার্যকর নয় এমন৷ ‘অকার্য্য গ্রন্থ সকল অপেক্ষায় অনেক ভাল।‘ অক্ষয়কুমার দত্ত, ১৮৫০। ব্যর্থ; বৃথা; useless. ‘কেন্দ্রীয় ব্যবস্থাও অকার্যকর হইয়া পতিত।‘ আজাদ পত্রিকা, ১৯৪৬। স্ত্রীলিঙ্গ অকার্যকরী; অকার্য্যকরী।
অকার্যকারক, অকার্য্যকারক [সংস্কৃত] বিশেষ্য যে অকার্য্য করে। স্ত্রীলিঙ্গ অকার্যকারিকা।
অকার্যকারী, অকার্য্যকারী [সংস্কৃত ন = অ + কার্য + কারী] বিশেষণ অপকর্মকারী; অলস। স্ত্রীলিঙ্গ অকার্যকারিণী। বিশেষ্য অকার্যকারিতা, অকার্যকারিত্ব।
অকার্যক্ষম, অকার্য্যক্ষম [সংস্কৃত ন = অ-(অবৈধ) কার্য (কার্যের) ক্ষম (ক্ষমতা) যার, বহুব্রীহি সমাস – যে অকার্য করতে পারে] বিশেষণ মন্দ বা অনুচিত কাজ করতে সমর্থ; খারাপ কাজে পটু; কুকর্মা। [সংস্কৃত ন = অ-কার্যক্ষম] যে কর্ম করতে অক্ষম; অপটু।
অকার্যচিন্তক, অকার্য্যচিন্তক [সংস্কৃত] বিশেষণ, কুচিন্তাকারী; অনর্থক চিন্তাকারী।
অকার্যচিন্তা, অকার্য্যচিন্তা [সংস্কৃত] বিশেষ্য অনর্থক বা ব্যর্থ চিন্তা। কুচিন্তা। আকাশ-কুসুম-চয়ন; অসম্ভব চিন্তা।
অকাল [সংস্কৃত ন = অ-(অপ্রশস্ত; অশুভ)-কাল (সময়)] বিশেষ্য অসময়; যার যে সময় নয়; অপরিণত কাল; অপূর্ণকাল। ‘অকাল মৃত্যু’; ‘ধর্ম্ম হিংসা জেই করে অকালে সে ঘরে।’ মালাধর বসু, ১৫০০। অশুদ্ধকাল; গুরু শুক্রের বৃদ্ধাস্তবাল্যাদি কাল; মলমাস ইত্যাদি; শুভকর্মের অযোগ্য কাল। ‘এই দুই কর্ম্ম ব্রহ্মা করিতে সাধন। অকালে শরতে কৈল চণ্ডীর বোধন” – রামায়ণ, কৃত্তিবাস ওঝা দুর্ভিক্ষ; দুঃসময়। বিশেষণ অসময়োচিত। ‘তেঁই শুকাইল জলপূর্ণ আলবাল অকাল নিদাঘে।‘ মাইকেল মধুসূদন দত্ত, ১৮৬১। ক্রিয়া-বিশেষণ, অকালে।
অকাল-অপক্ব [সংস্কৃত] বিশেষণ বয়স হওয়ার পরও অপক্ব আছে এমন। ‘হয় সে অকাল-অপক্ব নয় সে অকালপক্ব৷’ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ১৮৯৪।
অকাল-অবসান [সংস্কৃত] বিশেষ্য সময় হওয়ার আগেই শেষ। ‘অকাল-অবসানের অবসাদ।‘ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ১৯২৮।
অকাল-কাব্যানুরাগ [সংস্কৃত] বিশেষ্য অসময়ে কাব্যের প্ৰতি অনুরাগ। ‘এই অকাল-কাব্যানুরাগ দেখিয়া বন্ধুবান্ধবেরা …।‘ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ১৮৯৮।
অকাল-বৈশাখী [সংস্কৃত] বিশেষ্য বৈশাখী ঝড়ের অনুরূপ ঝড়। ‘আমি ধূর্জটি, আনি এলোকেশে ঝড় অকাল-বৈশাখীর!’ কাজী নজরুল ইসলাম, ১৯২২।
অকাল-ব্যাঘাত [সংস্কৃত] বিশেষ্য অসময়ে বাধা। ‘এ কী অকাল-ব্যাঘাত!’ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ১৮৯০।
অকালকুষ্মাণ্ড (-শ্শাঁ-) [সংস্কৃত অকাল (অ-সময়ে জাত) + কুষ্মাণ্ড (কুমড়া)- যে কুমড়া বলিদানাদি কার্যে লাগে না; যে কুষ্মাণ্ড কোন কাজের নয়] বিশেষ্য অকেজো; অকর্মণ্য, হিতাহিত জ্ঞান রহিত ব্যক্তি (তিরস্কারচ্ছলে)। ‘ও অকালকুষ্মাণ্ড পীতাম্বরও ঘোর আহম্মক।‘ গিরিশচন্দ্র ঘোষ, ১৮৮৯। ‘নাহি কি জ্ঞানকাণ্ড? অকালকুষ্মাণ্ড!’ দ্বিজেন্দ্রলাল রায় [গান্ধারী কুষ্মাণ্ডাকার মাংসপিণ্ড অকালে প্রসব করেন, যা হতে কুরুকুলনাশন দুর্য্যোধনাদি শত পুত্রের জন্ম, তা হতে] পরিবারের অনিষ্টকর বা কলঙ্ক বা বিনাশ-হেতু বংশধর বা ব্যক্তি। দুর্ব্বৃত্ত scoundrel.
অকালকুসুম [সংস্কৃত অকালের-কুসুম] বিশেষ্য অসময়ের ফুল। অসম্ভব কিছু।
অকালজ (-ল-) [সংস্কৃত অ (অপূর্ণ কালে) জ, জাত] বিশেষণ অসময়ে উৎপন্ন untimely. স্ত্রীলিঙ্গ অকালজা।
অকালজলদোদয় [সংস্কৃত অকালে-জলদ (মেঘের)- উদয়, সপ্তমী তৎপুরুষ, ষষ্ঠী তৎপুরুষ] বিশেষ অসময়ে মেঘোদয়। কুজ্ঝটিকা।
অকালজাত [সংস্কৃত অ-(অপূর্ণ কালে) জাত] বিশেষণ অসময়ে উৎপন্ন untimely. স্ত্রীলিঙ্গ অকালজাতা।
অকালপক্ব [সংস্কৃত] বিশেষণ ইঁচড়ে পাকা। ‘হয় সে অকাল-অপক্ব নয় সে অকালপক্ব৷’ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ১৮৯৪। অকালে পাকা। ‘বাঙালির মন এখন অর্ধেক অকালপক্ব এবং অর্ধেক অযথা-কচি।‘ প্রমথ চৌধুরী, ১৯১৪। বিশেষ্য, অকালপক্বতা।
অকালপক্বতা [সংস্কৃত] বিশেষ্য অকালে পরিপক্বতা৷ ‘অকালপক্বতার দরুণ গভীর বিরহের কথা৷’ মুহম্মদ আবদুল হাই, ১৯৫8।
অকালপ্রয়াত [সংস্কৃত] বিশেষণ অকালে মারা গেছে এমন। ‘কল্লোল যুগের লেখিকা এবং অকালপ্ৰয়াতা।’ অচিন্ত্যকুমার সেনগুপ্ত, ১৯৫০।
অকালপ্রয়াতা [সংস্কৃত] বিশেষণ, স্ত্রীলিঙ্গ অকালে মারা গেছে এমন। ‘কল্লোল যুগের লেখিকা এবং অকালপ্ৰয়াতা।’ অচিন্ত্যকুমার সেনগুপ্ত, ১৯৫০।
অকালবসন্ত [সংস্কৃত] বিশেষ্য অসময়ে আসা বসন্ত। ‘সেখানে হঠাৎ অকাল-বসন্তের সমাগম।‘ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ১৯০৭।
অকালবার্ধক্য [সংস্কৃত] বিশেষ্য অসময়ে আগত বৃদ্ধাবস্থা। ‘… অনেকের যৌবনে অকালবার্ধক্য এনে দিয়েছিল।‘ প্রমথ চৌধুরী, ১৯১৪।
অকালবৃদ্ধ [সংস্কৃত] বিশেষণ পরিণত বয়সের আগেই জ্বরাগ্রস্ত। ‘থেকো না অকালবৃদ্ধ বসিয়া একেলা।‘ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ১৮৯৩।
অকালবৃদ্ধতা [সংস্কৃত] বিশেষ্য অসময়ে আগত বৃদ্ধাবস্থা। ‘তার পক্ষে বৃদ্ধের অভিজ্ঞতা হচ্ছে অকালবৃদ্ধতা।‘ অন্নদাশঙ্কর রায়, ১৯২৮।
অকালবৃষ্টি [সংস্কৃত] বিশেষ্য অসময়ের বৃষ্টি। ‘অকালবৃষ্টি আছে, বন্যা আছে … । বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, ১৮৭৯।
অকালবৈধব্য [সংস্কৃত] বিশেষ্য অসময়ে বিধবার অবস্থা। ‘কন্যার কুষ্টিতে যদি অকালবৈধব্যযোগ থাকে।‘ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ১৯৪০।
অকালবোধন [সংস্কৃত ন = অ + কাল + বোধন] বিশেষ্য অসাময়িক বোধন; অসময়ে আহ্বান। ‘প্ৰবৃত্তির অকালবোধন ও বিলাসিতার উগ্র উত্তেজনা৷’ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ১৯০৮।
অকালমরণ [সংস্কৃত] বিশেষ্য পরিণত বয়সের আগেই মৃত্যু। ‘দূর কর দুর্গা মোর অকালমরণ৷’ মুকুন্দরাম চক্রবর্তী, ১৬০০।
অকালমাতৃত্ব [সংস্কৃত] বিশেষ্য ঠিক বয়সের আগেই মা হওয়া। ‘অকালমাতৃত্ব সমাজ হইতে যত শীঘ্র উচ্ছিন্ন হয় …।‘ সওগাত পত্রিকা, ১৯২৬।
অকালমৃত [সংস্কৃত] বিশেষণ পরিণত বয়সের আগে মারা গেছে এমন৷ ‘অনাহারজীর্ণ রোগশীর্ণ অকালমৃত সন্তানের লাশ।‘ কাজী নজরুল ইসলাম, ১৯২৭।
অকালমৃত্যু [সংস্কৃত] বিশেষ্য পরিণত বয়সের আগেই মৃত্যু। ‘আমার নিমিত্তেই স্বামীর এই অকালমৃত্যু হইল।‘ ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, ১৮৪৭।
অকাললুপ্ত [সংস্কৃত] বিশেষণ অসময়ে বিলীন। ‘নদীর শীর্ণ সুবাস, জলের অন্তর্বাস থেকে উঠে আসা নিরেট ভারী গন্ধের মধ্যে অকাললুপ্ত হয়ে গেলো৷’ আখতারুজ্জামান ইলিয়াস, ১৯৭২।
অকালসন্ধ্যা [সংস্কৃত] বিশেষ্য অসয়ের সন্ধ্যা৷ ‘বর্ষার অকালসন্ধ্যা যখন অত্যন্ত ঘন হইয়া আসিল।‘ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ১৮৯২।
অকালসহ [সংস্কৃত ন = অ-কাল (সময়, বিলম্ব)-সহ (যে সয়)] বিশেষণ যার কালবিলম্ব সয়না; অধৈর্য; অস্থির। যাতে কালবিলম্ব সহেনা বা যে বিষয়ে কালবিলম্ব করা চলে না।
অকালে [সংস্কৃত] ক্রিয়া-বিশেষণ অসময়ে; অনুপযুক্ত কালে। ‘ধর্ম্ম হিংসা জেই করে অকালে সে মরে।‘ মালাধর বসু, ১৫০০; ‘কি লাগিয়া হেথা আইলা অকালে?’ মেঘনাদবধ কাব্য, মাইকেল মধুসূদন দত্ত, ১৮৬১। অশুভ সময়ে। ‘অকালে শরতে কৈল চণ্ডীর বোধন।‘ কৃত্তিবাস ওঝা, ১৬৫০। অপরিণত বা অল্পবয়সে। ‘বীরচূড়ামণি বীরবাহু, চলি যবে গেলা যমপুরে অকালে।’ মেঘনাদবধ কাব্য, মাইকেল মধুসূদন দত্ত, ১৮৬১।
অকালে জাত [সংস্কৃত] বিশেষণ অকালজাত; অসময়ে জন্ম নিয়েছে এমন। ‘ডিম্ব হইতে অকালে জাত অরুণের মতো পুঙ্গ হইয়াই থাকে।‘ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ১৯০৫।
অকালের পূজা সংজ্ঞা দেবতাদিগের উত্তরায়ণ (দ্রষ্টব্য) দিন এবং দক্ষিণায়ণ (দ্রষ্টব্য) রাত্রি। সুতরাং আশ্বিন মাস দেবতাদের রাত্রি। রাত্রিতে নিদ্রিতের পূজা অবিধেয়। রামচন্দ্র রাবণ-বধার্থ অপেক্ষা করিতে না পারিয়া, ও শরৎকালই শাস্ত্রমতে যুদ্ধযাত্রার প্রধান সময় বলিয়া আশ্বিন মাসেই দুর্গাপূজা করিয়াছিলেন। দেবতাদের রাত্রিকালে এই পূজা অনুষ্ঠিত হয় বলিয়া এই নাম, ও তাই অকালবোধন আবশ্যক [চৈত্র মাসের পূজাই (বাসন্তী পূজা) কালের পূজা]।
অকাল্পনিক [সংস্কৃত ন = অ-কল্পনা + ইক] বিশেষণ অকল্পিত। ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, ১৮৬৪। কল্পনাসম্ভূত নহে; প্রকৃত; বাস্তবিক। ‘সে যে অকাল্পনিক, সে যে সত্য।‘ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, ১৯৩০। বিশেষ্য, অকাল্পনিকতা।
অকাশ [সংস্কৃত আকাশ] বিশেষ্য আকাশ। ‘ফিটেলি অন্ধারী রে অকাশ ফুলিআ।‘ চর্যাপদ ৫০, ১২০০।
অকাশফুলিআ [বৌদ্ধ বাংলা প্রাকৃত] বিশেষ্য, আকাশকুসুম। ‘ফিটেলি অন্ধারী রে অকাশফুলিআ।‘ চর্যাপদ ৫০, ১২০০।
অকাস [সংস্কৃত আকাশ] বিশেষ্য আকাশ। ‘কবরীভয়ে শিখী গেয় গিরিকন্দরে মুখভয়ে চান্দ অকাসে।‘ বিদ্যাপতি, ১৪৬০।
Scroll Up