বাংলা যুক্তবর্ণের তালিকা

যুক্তবর্ণ বলতে একাধিক ব্যঞ্জনবর্ণের সমষ্টিকে বোঝানো হয়েছে। বাংলা লিখনপদ্ধতিতে যুক্তবর্ণের একটি বিশেষ স্থান আছে। এগুলি বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই উপাদান বর্ণগুলির চেয়ে দেখতে ভিন্ন, ফলে নতুন শিক্ষার্থীর এগুলি লেখা আয়ত্ত করতে সময়ের প্রয়োজন হয়।

যুক্তবর্ণগুলি বাংলা লিখন পদ্ধতির বৈশিষ্ট্য। উচ্চারিত ধ্বনির সাথে এগুলির উপাদান ব্যঞ্জনবর্ণের নির্দেশিত ধ্বনির সবসময় সরাসরি সম্পর্ক না-ও থাকতে পারে। যেমন – পক্ব -এর উচ্চারণ পক্‌কো; বানানে ব-ফলা থাকলেও উচ্চারণে ব ধ্বনিটি অনুপস্থিত। রুক্ষ-এর উচ্চারণ রুক্‌খো; বানানের নিয়ম অনুযায়ী ক্ষ যুক্তবর্ণটি ক ও ষ-এর যুক্তরূপ হলেও উচ্চারণ হয় ক্‌খ। বানান ও ধ্বনির এই অনিয়মও শিক্ষার্থীর জন্য যুক্তবর্ণের সঠিক ব্যবহারে একটি বাধা হয়ে দাঁড়ায়।

নিচের যুক্তবর্ণের তালিকাটি বাংলা সঠিকভাবে লিখতে সহায়ক হতে পারে। এখানে বাংলায় ব্যবহৃত ২৮৫টি যুক্তবর্ণ দেওয়া হয়েছে। এর বাইরে কোন যুক্তবর্ণ সম্ভবত বাংলায় প্রচলিত নয়।

  1. ক্ক = ক + ক; যেমন: আক্কেল, টেক্কা
  2. ক্ট = ক + ট; যেমন: ডক্টর (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
  3. ক্ট্র = ক + ট + র; যেমন: অক্ট্রয়
  4. ক্ত = ক + ত; যেমন: রক্ত
  5. ক্ত্র = ক + ত + র; যেমন: বক্ত্র
  6. ক্ব = ক + ব; যেমন: পক্ব, ক্বণ
    ক্ম = ক + ম; যেমন: রুক্মিণী
    ক্য = ক + য; যেমন: বাক্য
    ক্র = ক + র; যেমন: চক্র
    ক্ল = ক + ল; যেমন: ক্লান্তি
    ক্ষ = ক + ষ; যেমন: পক্ষ
    ক্ষ্ণ = ক + ষ + ণ; যেমন: তীক্ষ্ণ
    ক্ষ্ব = ক + ষ + ব; যেমন: ইক্ষ্বাকু
    ক্ষ্ম = ক + ষ + ম; যেমন: লক্ষ্মী
    ক্ষ্ম্য = ক + ষ + ম + য; যেমন: সৌক্ষ্ম্য
    ক্ষ্য = ক + ষ + য; যেমন: লক্ষ্য
    ক্স = ক + স; যেমন: বাক্স
    খ্য = খ + য; যেমন: সখ্য
    খ্র = খ+ র যেমন; যেমন: খ্রিস্টান
    গ্‌ণ = গ + ণ; যেমন – রুগ্‌ণ
    গ্ধ = গ + ধ; যেমন: মুগ্ধ
    গ্ধ্য = গ + ধ + য; যেমন: বৈদগ্ধ্য
    গ্ধ্র = গ + ধ + র; যেমন: দোগ্ধ্রী
    গ্ন = গ + ন; যেমন: ভগ্ন
    গ্ন্য = গ + ন + য; যেমন: অগ্ন্যাস্ত্র, অগ্ন্যুৎপাত, অগ্ন্যাশয়
    গ্ব = গ + ব; যেমন: দিগ্বিজয়ী
    গ্ম = গ + ম; যেমন: যুগ্ম
    গ্য = গ + য; যেমন: ভাগ্য
    গ্র = গ + র; যেমন: গ্রাম
    গ্র্য = গ + র + য; যেমন: ঐকাগ্র্য, সামগ্র্য, গ্র্যাজুয়েট
    গ্ল = গ + ল; যেমন: গ্লানি
    ঘ্ন = ঘ + ন; যেমন: কৃতঘ্ন
    ঘ্য = ঘ + য; যেমন: অশ্লাঘ্য
    ঘ্র = ঘ + র; যেমন: ঘ্রাণ
    ঙ্ক = ঙ + ক; যেমন: অঙ্ক
    ঙ্‌ক্ত = ঙ + ক + ত; যেমন: পঙ্‌ক্তি
    ঙ্ক্য = ঙ + ক + য; যেমন: অঙ্ক্য
    ঙ্ক্ষ = ঙ + ক + ষ; যেমন: আকাঙ্ক্ষা
    ঙ্খ = ঙ + খ; যেমন: শঙ্খ
    ঙ্গ = ঙ + গ; যেমন: অঙ্গ
    ঙ্গ্য = ঙ + গ + য; যেমন: ব্যঙ্গ্যার্থ, ব্যঙ্গ্যোক্তি
    ঙ্ঘ = ঙ + ঘ; যেমন: সঙ্ঘ
    ঙ্ঘ্য = ঙ + ঘ + য; যেমন: দুর্লঙ্ঘ্য
    ঙ্ঘ্র = ঙ + ঘ + র; যেমন: অঙ্ঘ্রি
    ঙ্ম = ঙ + ম; যেমন: বাঙ্ময়
    চ্চ = চ + চ; যেমন: বাচ্চা
    চ্ছ = চ + ছ; যেমন: ইচ্ছা
    চ্ছ্ব = চ + ছ + ব; যেমন: জলোচ্ছ্বাস
    চ্ছ্র = চ + ছ + র; যেমন: উচ্ছ্রায়
    চ্ঞ = চ + ঞ; যেমন: যাচ্ঞা
    চ্ব = চ + ব; যেমন: চ্বী
    চ্য = চ + য; যেমন: প্রাচ্য
    জ্জ = জ + জ; যেমন: বিপজ্জনক
    জ্জ্ব = জ + জ + ব; যেমন: উজ্জ্বল
    জ্ঝ = জ + ঝ; যেমন: কুজ্ঝটিকা
    জ্ঞ = জ + ঞ; যেমন: জ্ঞান
    জ্ব = জ + ব; যেমন: জ্বর
    জ্য = জ + য; যেমন: রাজ্য
    জ্র = জ + র; যেমন: বজ্র
    ঞ্চ = ঞ + চ; যেমন: অঞ্চল
    ঞ্ছ = ঞ + ছ; যেমন: লাঞ্ছনা
    ঞ্জ = ঞ + জ; যেমন: কুঞ্জ
    ঞ্ঝ = ঞ + ঝ; যেমন: ঝঞ্ঝা
    ট্ট = ট + ট; যেমন: চট্টগ্রাম
    ট্ব = ট + ব; যেমন: খট্বা
    ট্ম = ট + ম; যেমন: কুট্মল
    ট্য = ট + য; যেমন: নাট্য
    ট্র = ট + র; যেমন: ট্রেন (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    ড্ড = ড + ড; যেমন: আড্ডা
    ড্ব = ড + ব; যেমন: অন্ড্বান
    ড্য = ড + য; যেমন: জাড্য
    ড্র = ড + র; যেমন: ড্রাইভার, ড্রাম (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    ড়্গ = ড় + গ; যেমন: খড়্‌গ
    ঢ্য = ঢ + য; যেমন: ধনাঢ্য
    ঢ্র = ঢ + র; যেমন: মেঢ্র (ত্বক) (মন্তব্য: অত্যন্ত বিরল)
    ণ্ট = ণ + ট; যেমন: ঘণ্টা
    ণ্ঠ = ণ + ঠ; যেমন: কণ্ঠ
    ণ্ঠ্য = ণ + ঠ + য; যেমন: কণ্ঠ্য
    ণ্ড = ণ + ড; যেমন: গণ্ডগোল
    ণ্ড্য = ণ + ড + য; যেমন: পাণ্ড্য
    ণ্ড্র = ণ + ড + র; যেমন: পুণ্ড্র
    ণ্ঢ = ণ + ঢ; যেমন: ষণ্ঢ
    ণ্ণ = ণ + ণ; যেমন: বিষণ্ণ
    ণ্ব = ণ + ব; যেমন: স্হাণ্বীশ্বর
    ণ্ম = ণ + ম; যেমন: চিণ্ময়
    ণ্য = ণ + য; যেমন: পূণ্য
    ত্ত = ত + ত; যেমন: উত্তর
    ত্ত্র = ত + ত + র; যেমন: পুত্ত্র (মন্তব্য: এই যুক্তবর্ণটি ইউনিকোডে সাপোর্ট করে না বলে আকৃতি বিকৃত হয়েছে৷ বর্তমানে ব্যবহৃত না হলেও ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর ও তৎকালীন লেখকেরা এই বানানটি ব্যবহার করেছেন৷)
    ত্ত্ব = ত + ত + ব; যেমন: সত্ত্ব
    ত্ত্য = ত + ত + য; যেমন: উত্ত্যক্ত
    ত্থ = ত + থ; যেমন: অশ্বত্থ
    ত্ন = ত + ন; যেমন: যত্ন
    ত্ব = ত + ব; যেমন: রাজত্ব
    ত্ম = ত + ম; যেমন: আত্মা
    ত্ম্য = ত + ম + য; যেমন: দৌরাত্ম্য
    ত্য = ত + য; যেমন: সত্য
    ত্র = ত + র যেমন: ত্রিশ, ত্রাণ
    ত্র্য = ত + র + য; যেমন: বৈচিত্র্য
    ৎল = ত + ল; যেমন: কাৎলা
    ৎস = ত + স; যেমন: বৎসর, উৎসব
    থ্ব = থ + ব; যেমন: পৃথ্বী
    থ্য = থ + য; যেমন: পথ্য
    থ্র = থ + র; যেমন: থ্রি (three) (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    দ্গ = দ + গ; যেমন: উদ্গম
    দ্ঘ = দ + ঘ; যেমন: উদ্ঘাটন
    দ্দ = দ + দ; যেমন: উদ্দেশ্য
    দ্দ্ব = দ + দ + ব; যেমন: তদ্দ্বারা
    দ্ধ = দ + ধ; যেমন: রুদ্ধ
    দ্ব = দ + ব; যেমন: বিদ্বান
    দ্ভ = দ + ভ; যেমন: অদ্ভুত
    দ্ভ্র = দ + ভ + র; যেমন: উদ্ভ্রান্ত
    দ্ম = দ + ম; যেমন: ছদ্ম
    দ্য = দ + য; যেমন: বাদ্য
    দ্র = দ + র; যেমন: রুদ্র
    দ্র্য = দ + র + য; যেমন: দারিদ্র্য
    ধ্ন = ধ + ন; যেমন: অর্থগৃধ্নু
    ধ্ব = ধ + ব; যেমন: ধ্বনি
    ধ্ম = ধ + ম; যেমন: উদরাধ্মান
    ধ্য = ধ + য; যেমন: আরাধ্য
    ধ্র = ধ + র; যেমন: ধ্রুব
    ন্ট = ন + ট; যেমন: প্যান্ট (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    ন্ট্র = ন + ট + র; যেমন: কন্ট্রোল (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    ন্ঠ = ন + ঠ; যেমন: লন্ঠন
    ন্ড = ন + ড; যেমন: গন্ডার, পাউন্ড
    ন্ড্র = ন + ড + র; যেমন: হান্ড্রেড
    ন্ত = ন + ত; যেমন: জীবন্ত
    ন্ত্ব = ন + ত + ব; যেমন: সান্ত্বনা
    ন্ত্য = ন + ত + য; যেমন: অন্ত্য
    ন্ত্র = ন + ত + র; যেমন: মন্ত্র
    ন্ত্র্য = ন + ত + র + য; যেমন: স্বাতন্ত্র্য
    ন্থ = ন + থ; যেমন: গ্রন্থ
    ন্থ্র = ন + থ + র; যেমন: অ্যান্থ্রাক্স (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    ন্দ = ন + দ; যেমন: ছন্দ
    ন্দ্য = ন + দ + য; যেমন: অনিন্দ্য
    ন্দ্ব = ন + দ + ব; যেমন: দ্বন্দ্ব
    ন্দ্র = ন + দ + র; যেমন: কেন্দ্র
    ন্ধ = ন + ধ; যেমন: অন্ধ
    ন্ধ্য = ন + ধ + য; যেমন: বিন্ধ্য
    ন্ধ্র = ন + ধ + র; যেমন: রন্ধ্র
    ন্ন = ন + ন; যেমন: নবান্ন
    ন্ব = ন + ব; যেমন: ধন্বন্তরি
    ন্ম = ন + ম; যেমন: চিন্ময়
    ন্য = ন + য; যেমন: ধন্য
    প্ট = প + ট; যেমন: পাটি-সাপ্টা, ক্যাপ্টেন (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    প্ত = প + ত; যেমন: সুপ্ত
    প্ন = প + ন; যেমন: স্বপ্ন
    প্প = প + প; যেমন: ধাপ্পা
    প্য = প + য; যেমন: প্রাপ্য
    প্র = প + র; যেমন: ক্ষিপ্র
    প্র্য = প + র + য; যেমন: প্র্যাকটিস (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    প্ল = প + ল; যেমন:আপ্লুত
    প্স = প + স; যেমন: লিপ্সা
    ফ্র = ফ + র; যেমন: ফ্রক, ফ্রিজ, আফ্রিকা, রেফ্রিজারেটর (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    ফ্ল = ফ + ল; যেমন: ফ্লেভার (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    ব্জ = ব + জ; যেমন: ন্যুব্জ
    ব্দ = ব + দ; যেমন: জব্দ
    ব্ধ = ব + ধ; যেমন: লব্ধ
    ব্ব = ব + ব; যেমন: ডাব্বা
    ব্য = ব + য; যেমন: দাতব্য
    ব্র = ব + র; যেমন: ব্রাহ্মণ
    ব্ল = ব + ল; যেমন: ব্লাউজ
    ভ্ব =ভ + ব; যেমন: ভ্বা
    ভ্য = ভ + য; যেমন: সভ্য
    ভ্র = ভ + র; যেমন: শুভ্র
    ম্ন = ম + ন; যেমন: নিম্ন
    ম্প = ম + প; যেমন: কম্প
    ম্প্র = ম + প + র; যেমন: সম্প্রতি
    ম্ফ = ম + ফ; যেমন: লম্ফ
    ম্ব = ম + ব; যেমন: প্রতিবিম্ব
    ম্ব্র = ম + ব + র; যেমন: মেম্ব্রেন (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    ম্ভ = ম + ভ; যেমন: দম্ভ
    ম্ভ্র = ম + ভ + র; যেমন: সম্ভ্রম
    ম্ম = ম + ম; যেমন: সম্মান
    ম্য = ম + য; যেমন: গ্রাম্য
    ম্র = ম + র; যেমন: নম্র
    ম্ল = ম + ল; যেমন: অম্ল
    য্য = য + য; যেমন: ন্যায্য
    র্ক = র + ক; যেমন – তর্ক
    র্ক্য = র + ক + য; যেমন: অতর্ক্য (তর্ক দিয়ে যার সমাধান হয় না)
    র্গ্য = র + গ + য; যেমন – বর্গ্য (বর্গসম্বন্ধীয়)
    র্ঘ্য = র + ঘ + য; যেমন: দৈর্ঘ্য
    র্চ্য = র + চ + য; যেমন: অর্চ্য (পূজনীয়)
    র্জ্য = র + জ + য; যেমন: বর্জ্য
    র্ণ্য = র + ণ + য; যেমন: বৈবর্ণ্য (বিবর্ণতা)
    র্ত্য = র + ত + য; যেমন: মর্ত্য
    র্থ্য = র + থ + য; যেমন: সামর্থ্য
    র্ব্য = র + ব + য; যেমন: নৈর্ব্যক্তিক
    র্ম্য = র + ম + য; যেমন: নৈষ্কর্ম্য
    র্শ্য = র + শ + য; যেমন: অস্পর্শ্য
    র্ষ্য = র + ষ + য; যেমন: ঔৎকর্ষ্য
    র্হ্য = র + হ + য; যেমন: গর্হ্য
    র্খ = র + খ; যেমন: মূর্খ
    র্গ = র + গ; যেমন: দুর্গ
    র্গ্র = র + গ + র; যেমন: দুর্গ্রহ, নির্গ্রন্হ
    র্ঘ = র + ঘ; যেমন: দীর্ঘ
    র্চ = র + চ; যেমন: অর্চনা
    র্ছ = র + ছ; যেমন: মূর্ছনা
    র্জ = র + জ; যেমন: অর্জন
    র্ঝ = র + ঝ; যেমন: নির্ঝর
    র্ট = র + ট; যেমন: আর্ট, কোর্ট, কম্ফর্টার, শার্ট, কার্টিজ, আর্টিস্ট, পোর্টম্যানটো, সার্টিফিকেট, কনসার্ট, কার্টুন, কোয়ার্টার (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    র্ড = র + ড; যেমন: অর্ডার, লর্ড, বর্ডার, কার্ড (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    র্ণ = র + ণ; যেমন: বর্ণ
    র্ত = র + ত; যেমন: ক্ষুধার্ত
    র্ত্র = র + ত + র; যেমন: কর্ত্রী
    র্থ = র + থ; যেমন: অর্থ
    র্দ = র + দ; যেমন: নির্দয়
    র্দ্ব = র + দ + ব; যেমন: নির্দ্বিধা
    র্দ্র = র + দ + র; যেমন: আর্দ্র
    র্ধ = র + ধ; যেমন: গোলার্ধ
    র্ধ্ব = র + ধ + ব; যেমন: ঊর্ধ্ব
    র্ন = র + ন; যেমন: দুর্নাম
    র্প = র + প; যেমন: দর্প
    র্ফ = র + ফ; যেমন: স্কার্ফ (মন্তব্য: মূলত ইংরেজি ও আরবী-ফার্সি কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    র্ভ = র + ভ; যেমন: গর্ভ
    র্ম = র + ম; যেমন: ধর্ম
    র্য = র + য; যেমন: আর্য (মন্তব্য দেখুন)
    র্ল = র + ল; যেমন: দুর্লভ
    র্শ = র + শ; যেমন: স্পর্শ
    র্শ্ব = র+ শ + ব; যেমন: পার্শ্ব
    র্ষ = র + ষ; যেমন: ঘর্ষণ
    র্স = র + স; যেমন: জার্সি, নার্স, পার্সেল, কুর্সি (মন্তব্য: মূলত ইংরেজি ও আরবী-ফার্সি কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    র্হ = র + হ; যেমন: গার্হস্থ্য
    র্ঢ্য = র + ঢ + য; যেমন: দার্ঢ্য (অর্থাৎ দৃঢ়তা)
    ল্ক = ল + ক; যেমন: শুল্ক
    ল্ক্য = ল + ক + য; যেমন: যাজ্ঞবল্ক্য
    ল্গ = ল + গ; যেমন: বল্গা
    ল্ট = ল + ট; যেমন: উল্টো
    ল্ড = ল + ড; যেমন: ফিল্ডিং (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    ল্প = ল + প; যেমন: বিকল্প
    ল্‌ফ = ল + ফ; যেমন: গল্‌ফ (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    ল্ব = ল + ব; যেমন: বিল্ব, বাল্ব
    ল্‌ভ = ল + ভ; যেমন: প্রগল্‌ভ
    ল্ম = ল + ম; যেমন: গুল্ম
    ল্য = ল + য; যেমন: তারল্য
    ল্ল = ল + ল; যেমন: উল্লাস
    শ্চ = শ + চ; যেমন: পুনশ্চ
    শ্ছ = শ + ছ; যেমন: শিরশ্ছেদ
    শ্ন = শ + ন; যেমন: প্রশ্ন
    শ্ব = শ + ব; যেমন: বিশ্ব
    শ্ম = শ + ম; যেমন: জীবাশ্ম
    শ্য = শ + য; যেমন: অবশ্য
    শ্র = শ + র; যেমন: মিশ্র
    শ্ল = শ + ল; যেমন: অশ্লীল
    ষ্ক = ষ + ক; যেমন: শুষ্ক
    ষ্ক্র = ষ + ক + র; যেমন: নিষ্ক্রিয়
    ষ্ট = ষ + ট; যেমন: কষ্ট
    ষ্ট্য = ষ + ট + য; যেমন: বৈশিষ্ট্য
    ষ্ট্র = ষ + ট + র; যেমন: রাষ্ট্র
    ষ্ঠ = ষ + ঠ; যেমন: শ্রেষ্ঠ
    ষ্ঠ্য = ষ + ঠ + য; যেমন: নিষ্ঠ্যূত
    ষ্ণ = ষ + ণ; যেমন: কৃষ্ণ
    ষ্প = ষ + প; যেমন: নিষ্পাপ
    ষ্প্র = ষ + প + র; যেমন: নিষ্প্রয়োজন
    ষ্ফ = ষ + ফ; যেমন: নিষ্ফল
    ষ্ব = ষ + ব; যেমন: মাতৃষ্বসা
    ষ্ম = ষ + ম; যেমন: উষ্ম
    ষ্য = ষ + য; যেমন: শিষ্য
    স্ক = স + ক; যেমন: মনোস্কামনা
    স্ক্র = স + ক্র; যেমন: ইস্ক্রু (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    স্খ = স + খ; যেমন: স্খলন
    স্ট = স + ট; যেমন: স্টেশন (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    স্ট্র = স + ট্র; যেমন: স্ট্রাইক (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    স্ত = স + ত; যেমন: ব্যস্ত
    স্ত্ব = স + ত + ব; যেমন: বহিস্ত্বক
    স্ত্য = স + ত + য; যেমন:অস্ত্যর্থ
    স্ত্র = স + ত + র; যেমন: স্ত্রী
    স্থ = স + থ; যেমন: দুঃস্থ
    স্থ্য = স + থ + য; যেমন: স্বাস্থ্য
    স্ন = স + ন; যেমন: স্নান
    স্প = স + প; যেমন: আস্পর্ধা
    স্প্র = স + প +র; যেমন: স্প্রিং (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    স্প্‌ল = স + প + ল; যেমন: স্প্‌লিন (মন্তব্য: এই যুক্তাক্ষরটি মূলত ইংরেজি/বিদেশী কৃতঋণ শব্দে ব্যবহৃত)
    স্ফ = স + ফ; যেমন: আস্ফালন
    স্ব = স + ব; যেমন: স্বর
    স্ম = স + ম; যেমন: স্মরণ
    স্য = স + য; যেমন: শস্য
    স্র = স + র; যেমন: অজস্র
    স্ল = স + ল; যেমন: স্লোগান
    হ্ণ = হ + ণ; যেমন: অপরাহ্ণ
    হ্ন = হ + ন; যেমন: চিহ্ন
    হ্ব = হ + ব; যেমন: আহ্বান
    হ্ম = হ + ম; যেমন: ব্রাহ্মণ
    হ্য = হ + য; যেমন: বাহ্য
    হ্র = হ + র; যেমন: হ্রদ
    হ্ল = হ + ল; যেমন: আহ্লাদ
    র্য-কে যুক্তবর্ণ ধরা হয়েছে, কেননা এটি র ও য-এর সমষ্টি। অন্যদিকে র‌্যাব, র‌্যাম, র‌্যাঁদা, ইত্যাদিতে উপস্থিত র‌্য-কে যুক্তবর্ণ হিসেবে ধরা হয়নি, কেননা এটি আসলে র‌্যা-এর অংশ, আর র‌্যা হল র ব্যঞ্জনধ্বনি এবং অ্যা স্বরধ্বনির মিলিত রূপ।

প্রতিক্রিয়া

প্রতিক্রিয়া